নান্দাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় পিতা-পুত্র সহ নিহত  ৩, আহত ১২

প্রকাশিত: ৭:০৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০
35 Views
মোহাম্মদ আমিনুল হক বুুলবুল, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :
ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কে নান্দাইল উপজেলার ঘোষপালা নামকস্থানে মাইক্রোবাস ও পিকআপ মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে পিতা-পুত্র নিহত হন। আহত হন ১২ জন। পরে ঝর্ণা আক্তার (৪৫) নামে এক নারী ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।
অন্য নিহতরা হলেন- শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার জলংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফাহাদ আলম (৩২) ও তার পাঁচ বছরের পুত্র সন্তান তোরান।
জানা যায়, শেরপুরের শ্রীবরদী ও জামালপুরের বকশিগঞ্জের পরস্পর আত্মীয়-স্বজনের একটি দল মাইক্রোবাসে করে কিশোরগঞ্জের নিকলী হাওর ভ্রমণে যাচ্ছিল। ময়মনসিংহ হয়ে নান্দাইল উপজেলার ঘোষপালা নামক স্থানে পৌঁছলে মহাসড়কে একটি মৃত কুকুরকে পাশ কাটিয়ে মাইক্রোবাসাটি অতিক্রম করার সময় বিপরীতমুখি একটি পিকআপের মুখোমুখি সংষর্ষে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।এতে দুটি যানের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়।
ঘটনার পরপরই স্থানীয় এলাকাবাসী ও নান্দাইল ফায়ার সার্ভিসের লোকজন আহতদের উদ্ধার করে নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। এবং গুরুতর আহতদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।  ঘটনাস্থলেই ফাহাদ আলম (৩২) ও তার ৫ বছরের ছেলে তোরান মারা যান।
আহতরা হলেন- জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার হানিফের মেয়ে শারমীন (১৮),মনিরুজ্জামানের স্ত্রী শাহনাজ(২৫),হাফিজ উদ্দীনের স্ত্রী ঝর্ণা (৪৫)। শেরপুর শ্রীবরদী উপজেলার ফাহাদের স্ত্রী রেবু (২৫), হুমায়ুনের স্ত্রী হাসিনা শাহিন রোজি( ৫২) পুত্র হোসাইন আহমেদ (৩০),মেয়ে বন্যা (২০), লাজু মিয়ার পুত্র জারিফ(১২),বাবুল মিয়ার স্ত্রী ফেরদৌসি (৫২)। শেরপুর ভারুভাদার তালুকদারের স্ত্রী জেবু (৩৫) ও ময়মনসিংহ  সদরের তারা মিয়ার পুত্র শামীম ( ২২)।
আহত হোসাইন আহমেদ বলেন, তাঁরা সবাই আত্মীয়। হাওর দেখতে মাইক্রোবাসে করে কিশোরগঞ্জের নিকলীর দিকে যাচ্ছিলেন তাঁরা।
নান্দাইল হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)মো. মঞ্জুরুল হক জানান, দুর্ঘটনায় নিহত পিতা-পুত্রের মৃতদেহ  উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।