জগন্নাথপুরে মেয়েকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় মেয়ের বাবাকে রড দিয়ে পিটিয়ে নির্যাতন

প্রকাশিত: ৯:৫১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২০
398 Views
সুনামগঞ্জ  প্রতিনিধি :

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে মেয়েকে উত্ত্যক্ত করা ও তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ তুলে এর প্রতিবাদ করায় বাবা আনোয়ার আলীকে (৬৫) রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ ওঠেছে।

অভিযোগ রয়েছে, সোমবার রাতে তালাকপ্রাপ্ত নারীর বাবাকে আলীগঞ্জ বাজারের কলোনির ভাড়া বাসা থেকে ধরে নিয়ে গিয়ে রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন শামীম ও তার লোকজন। এ ঘটনায় ৪ জনকে পুলিশ আটক করলেও পলাতক রয়েছেন শামীম।

স্থানীয় লোকজন ও নির্যাতিতা নারীর বাবা আনোয়ার আলী জানান, ৬ দিন আগে তার মেয়ে এক সন্তানের জননী রাসনা বেগমকে উঠিয়ে নিয়ে যান শামীম ও তার সহযোগীরা।হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার রাজনগর গ্রামে এক ব্যক্তির বাড়িতে গৃহপরিচারিকার কাজ করতেন তার মেয়ে। সেখান থেকে গত ৩০ সেপ্টেম্বর বিকেলে ওই বাসা থেকে তুলে নিয়ে যান শামীম। তারপর থেকে আর কোনো খোঁজ পাননি তিনি। ৭ বছর আগে নবীগঞ্জ উপজেলার রাজাবাজ গ্রামের কবির মিয়ার সঙ্গে মেয়ের বিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

 

দুই বছর হলো কবির মিয়া তার মেয়েকে তালাক দিয়েছেন। এরপর থেকে এক ছেলে নিয়ে মেয়েটি বাবার বাড়িতে অবস্থান করেন। তখন থেকে মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতেন শামীম। নারীর বাবা সোমবার রাতে শামীমের কাছে মেয়ের খোঁজ জানতে চাইলে শামীম বাহিনীর লোকজন তাকে জোর করে শামীমের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন।

জগন্নাথপুর থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চেীধুরী জানান, মেয়ের বাবাকে নির্যাতনের ঘটনায় ৪ জনকে আটক করা হয়েছে, শামীমকে ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।আর শামীম ও নিঁখোজ মেয়ের ২ বছর আগে বিয়ে হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। তবে মেয়েটিকে উঠিয়ে নিয়ে গেছে নাকি ঝগড়া করে কোথাও চলে গেছে তা এখনো বলা যাচ্ছে না। মেয়েটিকে উদ্ধারের অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।