শীতের আগাম সবজিতে খুশী চাষীর

প্রকাশিত: ৯:৫১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০২০
138 Views
আল হাবিব, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুরমা ও জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নে মাঠভরা এখন নতুন সবজি। শীতের শুরুতে আগাম সবজির ফলন ভাল হওয়ায় লাভবান সুনামগঞ্জের কৃষকরা। এমনকি ইতিমধ্যে  আগাম সবজি বাজারে দ্বিগুন দামে বিক্রি করতে পেরে খুশী চাষীরা।
সুনামগঞ্জ শহরতলির পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া সুরমা নদীর উত্তরপাড়ের বিশাল এলাকাজুড়ে সবজির চাষ হয়।
মঙ্গলবার (১০নভেম্বর) সবজি চাষীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতিবছরের মতো এবারও সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে ও অক্টোবরের শুরুর দিকেই লাউ, সিম, ফুলকপি, বাধাকপি, মুলা, করলা, লালা শাখ, ডাটা শাখ ঝিঙ্গা, চিচিঙ্গা, ঝালি কুমরাসহ নানা ধরনের সবজি চাষ করেন চাষীরা। কিন্তু অক্টোবরের শুরুর দিকে পাহাড়ীঢলে নিচু এলাকার সবজি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়। তবে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে চাষাবাদ করা উঁচু এলাকায় চাষাবাদ করা সবজি এখন বাজারে ওঠতে শুরু হয়েছে। এই সবজি’র দামও আশানুরূপ পাচ্ছেন বলে জানালেন কৃষকরা।
জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের পুরাতন গোঁদিগাঁও  গ্রামের সবজি চাষি লিয়াকত আলী বললেন, পাহাড়ীঢলে বেশিরভাগ সবজি ক্ষেত তলিয়ে যাওয়ায় কষ্টের মধ্যে পড়েছিলাম। সামান্য কিছু উঁচু জমিতে করলা, পানি লাউ ও লাল শাখ চাষাবাদ হয়েছিল। এখন সেগুলো বিক্রি করার উপযোগি হয়েছে। দামও ভালো পাচ্ছি। করলা সুনামগঞ্জের বাজারে নিয়ে বিক্রি করলে ৬০ থেকে টাকা ৭০ টাকা কেজি, পানি লাউ প্রতিটি ৫০ থেকে ৬০ টাকা, সিম বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজিতে। লালা শাখ প্রতি মোঠা ৫ থেকে ৭ টাকা বিক্রয় হচ্ছে। তিনি জানালেন, যোগাযোগ ব্যবস্থার নানা যন্ত্রণায় জমিতে রেখেই কেউ কেউ আগাম সবজি বিক্রি করছেন, এক্ষেত্রে দাম কম পাওয়া যাচ্ছে। পরিবহন খরচ ও সময় বাঁচানোর জন্য জমি থেকে কেউ কেউ অর্ধেক দামে সবজি বিক্রয় করছেন।
একই গ্রামের রহম আলী ও আবুল মিয়া জানান, ডাটা শাখ, মুলা শাখ, ঝিঙ্গা, চিচিঙ্গা, ঝালি কুমরা আগাম বিক্রয় করতে পেরে খুশি। এরা বললেন, ১৫ দিন পরে সবজির দাম অর্ধেক হয়ে যাবে। যারা আগাম বিক্রি করতে পারছে, তারা লাভবান হচ্ছে।
গোঁদিগাঁওয়ের সবজি চাষী রাশেদ মিয়া ও আবুল কাসেম বললেন, আগাম সবজি এবার খুব ভাল হয়েছে। তবে দাম অন্যান্য বছরের চেয়ে বেশি পাচ্ছেন তারা।
সুনামগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোস্তফা ইকবাল আজাদ বললেন, সারা জেলায় এ বছর ১২ হাজার ৫৬০ হেক্টর সবজি চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এরমধ্যে ৪৫০০ হেক্টর জমিতে ইতিমধ্যে সবজি চাষাবাদ হয়েছে। সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকার কৃষকদের আবাদ করা সবজি বাজারে ওঠা শুরু হয়েছে। এই সবজির দাম ভালো পাচ্ছেন কৃষকরা।