পাকুটিয়া ইউপি’তে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন

প্রকাশিত: ৯:২৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২১
              received_417468899330778.jpegreceived_765945380695884.jpegreceived_257671379087253.jpegreceived_457084372000269.jpeg
নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: আগামী ২২ মার্চ থেকে ৪ জুন পর্যন্ত ৪ হাজার ২৭৫ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন ৬ ধাপে অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশন সম্ভাব্য তফসিল ঘোষণা করেছে।
সেই ঘোষণা অনুসারে পাকুটিয়া ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশ নিতে ইচ্ছুক প্রার্থীরা পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে দোয়া ও সমর্থন আদায়ের প্রতিযোগিতায় নেমেছে।
তারা বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে নির্বাচনী উপস্থিতির জানান দিচ্ছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ভোটারদের কাছে নিজেদের তুলে ধরার চেষ্টা করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। মনোনয়ন পেতে জেলা উপজেলা থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে যোগাযোগও শুরু হয়েছে ইতিমধ্যে।
সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন-মোহাম্মদ শামীম খান, আলহাজ্ব মোঃ নজরুল ইসলাম ,কামরুন্নাহার সিদ্দিকী কাকলী ও মোঃ আজাহারুল ইসলাম।
পাকুটিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোহাম্মদ শামীম খান বলেন, বিগত ইউপি নির্বাচনে দলীয় সিধান্তকে উর্দ্বে রেখে দলীয় প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে কাজ করেছি।
আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আপনাদের স্বপ্ন এবং প্রত্যাশা পূরণে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসাবে মাঠে আছি। আমি মনোনয়নের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদি।
সামাজিক ভেদাভেদ দূরীকরণ, শিক্ষা, সংস্কৃতি ও খেলাধুলার বিকাশ ঘটানো, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন এবং সকলের সমন্বয়ে উন্নয়নে সুষম বন্টনের মাধ্যমে আপনাদের স্বপ্ন ও প্রত্যাশা পূরণই আমার অঙ্গীকার। দেশরত্ব শেখ হাসিনার স্বপ্ন ‘প্রতিটি গ্রাম হবে শহর’ বাস্তবায়নে কাজ করতে চাই।
কামরুন্নাহার সিদ্দিকী কাকলী বলেন, আমি আসন্ন পাকুটিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী। নৌকা প্রতীক পেলে আমার বিজয় অবশ্যাম্ভাবী। সকলকে সাথে নিয়ে সরকারের সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড সুষ্ঠু ও সমবন্টন করবো। ইউনিয়নের সকল প্রতিষ্ঠান এবং রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন করবো।
চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে অবহেলিত এই ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়ন হিসাবে গড়ে তুলবো। মাদক সমাজের একটি বড় ব্যাধি, বাল্য বিবাহ ও যৌতুক প্রথা এখনও সমাজে বিদ্যমান। এসব নির্মূল করাই আমার প্রধান লক্ষ্য।
সমাজের সকল বৈষম্য আর দুর্নীতিকে নির্মূল করে, অবহেলিত, অসহায় মানুষের পাশে থেকে কৃষক, শ্রমজীবী মানুষ ও নারী সমাজের অধিকার আদায়ে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে আমি বদ্ধপরিকর। এজন্য সকলের দোয়া ও সহযোগীতা কামনা করছি।