সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতার মৌলিক বিষয়বস্তু

প্রকাশিত: ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ৬, ২০২১
0Shares

লেখক: মোঃ মামুন মোল্লা

মোবাইল: ০১৬৮৬-৭৩৩৩২১

ইমেইল: mamunrprnc@gmail.com

১). সংবাদপত্র :- আমাদের চারপাশে যা কিছু ঘটছে বা ঘটেছে এবং জনগণের উদ্দেশ্যে প্রচারিত ঘটনার তত্ত্ব ও তথ্য নির্ভর লিখিত রুপই সংবাদ বিজ্ঞপ্তি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির পরিশালীত, পরিমার্জিত ও সমষ্টিগত প্রকাশনাকে বলা হয় সংবাদপত্র। যেমন- দি ডেইলি স্টার, দি ডেইলি সান, দি ফিনেন্সিয়াল এক্সপ্রেস, দি ডেইলি ট্রাইবুনাল, দি ডেইলি অবজারভার, দি নিউ এজ, দি ইন্ডিপেনডেন্ট, প্রথম আলো, বাংলাদেশ প্রতিদিন, যুগান্তর, সমকাল, কালের কন্ঠ, ইত্তেফাক ইত্যাদি।

 

২). সংবাদ সংস্থা :- সংবাদ পরিবেশনার দায়িত্বে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানকে বলা হয় সংবাদ সংস্থা। যেমন-বিবিসি, ভয়েস অব আমেরিকা, রয়টার ইত্যাদি।

৩). সাংবাদিক বা সাংবাদিকতা :-সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত কর্মীকে বলা হয় সাংবাদিক। সাংবাদিকের পেশা সাংবাদিকতা।সাংবাদিকতা একটি সম্মানজনক পেশা, এ পেশায় সততা ও দায়িত্বশীলতা প্রথম ও প্রধান কথা। সাংবাদিকের অসততা ও দায়িত্বহীনতা এ পেশার জন্য হুমকি স্বরুপ, এতে দেশ ও জাতি ক্ষতিগ্রস্থ হয়!

৪). সংবাদ  :-সংবাদ হলো ব্যতিক্রম জাতীয় ঘটে যাওয়া ঘটনা। যেমন- সাপকে মানুষ কামড়িয়েছে! এই ধরনের সংবাদ আবার ৪ প্রকার যথা:-

১) অপরাধ বিষয়ক সংবাদ, ২) উন্নয়নমূলক সংবাদ, ৩)পরিবেশ বিষয়ক সংবাদ, ৪)দুর্ঘটনা বিষয়ক সংবাদ।

৫). সংবাদের উৎস:- সংবাদের উৎস মানুষ ও প্রকৃতি। (North)দিক এর-N, (East)দিক এর-E, (West) দিক এর-W, (South) দিক এর-S নিয়ে News গঠিত।পৃথিবীর চারপাশে যা কিছু ঘটছে বা ঘটেছে তা নিয়েই সংবাদ তৈরি হয়।

মানুষ ও প্রকৃতি যেমন সংবাদের উৎস ঠিক তেমনি উপাদানও বটে। মানুষের-আশা, আকাঙ্খা, সুখ-দুঃখ, আনন্দ-বেদনা, সমস্যা ও সম্ভাবনাই সংবাদের প্রতিপাদ্য বিষয়। আর এর সাথে সম্পৃক্ত সকল বিষয়বস্তুই সংবাদের উপাদান এবং মানুষের জানার সকল বিষয়ই সংবাদের উপাদান বরে স্বীকৃত।

৬). সংবাদের বিভাজন :-  যে কোন সংবাদেরই লক্ষ্য থাকে পাঠককে যতটা সম্ভব বহুমুখী জ্ঞান দান করা। সে জন্যই পাঠকের চাহিদার প্রতি আনুগত খেকে সংবাদ পরিবেশন করতে হয।। যার মধ্যে সংবাদের সব ধরনের উপাদান থাকবে। এই উপাদান গুলোর দিক থেকে সাংবাদকে আবার ৪ভাগে ভাগ হয়ে থাকে।যথা-১) জ্ঞাপনতা ২)শিক্ষন ৩)আবেদন বা প্রভাবন ৪)বৈচিত্র্যময়ন বা প্রমোদন।

৭). সংবাদের পরিপ্রেক্ষিত :-সূত্র বা সোর্সের মাধ্যমে যেকোন বিষয়ে নিত্যনতুন সংবাদ সংগ্রহ করাকে সংবাদের পরিপ্রেক্ষিত বলা হয়।

৮). সংবাদ সংগ্রহের প্রক্রিয়া :- স্থান ভেদে কৌশলসহ সংবাদ সংগ্রহের কাজে ব্যবহৃত সকল প্রকার উপকরণ ব্যবহার করাকেই সংবাদ সংগ্রহের প্রক্রিয়া বলে। ( কৌশল- কি?, কথন?, কেন?, কোথায়? এবং কিভাবে?)

৯). সংবাদ লেখার নিয়ম :-সঠিক, বিশ্বাসযোগ্য, তথ্যবহুল ও পক্ষপাতহীন অর্থ্যাৎ সংবাদের সবটাই জুড়ে যেনো মনে হয় উত্তেজনাপূর্ণ ও আকস্মিকতার ছোঁয়ায় ভরপুর থাকতে হবে। সংবাদের বাক্যগুলি হতে হবে অতি সরল ও সংক্ষিপ্ত । যাতে পাঠক খুব সহজেই বুঝতে পারে এবং তৃপ্তি পায়। সংবাদ লেখার সময় যা করনীয়- চিন্তা করে, নিশ্চিন্ত হয়ে, প্রচলিত শব্দের ব্যবহার, বাহুল্য বর্জন করা, ছোট বাক্য ব্যবহার করা, সঠিক ও স্পষ্ট ভাষা ব্যবহার করা, ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ ব্যবহার করা, সহজভাবে লেখা, মুল বা আসল কথাটা বলা এবং লেখার পর পাঠ করা বা পড়া।

১০). সংবাদ লেখার মুলনীতি :-সহজে পড়তে পাড়া, ভুলত্রুটি সঠিকভাবে চিহিৃত করা এবং ভালোভাবে সংশোধন করা।

১১). সতর্কতার দিক বা দৃষ্টিকোণ :- ক) সময়ের সঠিকতা , খ) বিষয়ের দৈর্ঘ্য সংক্ষিপ্ত করা , গ) সময়ের উল্লেখ করা, ঘ) সংখ্যা শব্দে ব্যবহার করা, ঙ) সঠিক পদবী ব্যবহার করা, চ)  সঠিক নাম উল্লেখ এবং ছ) বিশেষণ ব্যবহার না করা।

১২).সংবাদ লেখার বৈচিত্র্যতা :-সংবাদ লেখার সময় পরিকল্পিত ও সুষ্ঠভাবে তথ্যের প্রয়োগ করতে হয়। প্রথমে প্রধান, তারপর অবশিষ্ঠ অংশের প্রধান, তারপর তার পরের প্রধান অংশ এভাবে ব্যবহার করতে হয় অর্থ্যাৎ সহজ ও সংক্ষিপ্তকারে ক্রমরীতিতে তথ্য পরিবেশন করতে হয়। যাতে পাঠক একবার পড়েই উপকৃত হয়। এ দিকে লক্ষ্য রেখে সংবাদের উপাদান সমূহকে ছয়(৬)টি ভাগে বিভক্ত করা হয়েছে। যথা- ১) কি? ২) কোথায়? ৩) কখন? ৪) কেন? ৫) কে? ৬) কিভাবে?

সংবাদের ক্ষেত্রে বলা হয় ফাইভ ডব্লিউ- 5W , ওয়ান এইচ-1H । যা সংবাদে অবশ্যই থাকতে হবে। ফাইভ ডব্লিউ (5W) বলতে পাঁচটি প্রশ্নবোধক শব্দকে বোঝায়। যেমন-What=কি?, Where=কোথায়?, When=কখন?, Why= কেন?, How=কে? বা কারা, এবং  ওয়ান এইচ-1H বলতে How কে বোঝানো হয়ে থাকে।(5W-1H)।

১৩). সংবাদ লেখার প্রারম্ভিকতা :- সংবাদের শিরোনামে পাঠককে আকৃষ্ট করা যাতে পাঠক সম্পূর্ণৃ সংবাদটি পাঠ করেন। অবশ্যই সংবাদে নিয়ম মাফিক 5W-1H এর ব্যবহার করতে হবে এবং অবশ্যই সংবাদটি তথ্যবহুল হতে হবে।

১৪). সংবাদের তথ্য বিচার :-পাঠকের চাহিদা পূরনের জন্য সংবাদটি হতে হবে ব্যাপক তথ্যসম্মৃদ্ধ । যা পাঠককে তৃপ্তি প্রদানে সাহায্যের পাশাপাশি সঙবাদপত্রটির দিকে আকৃষ্ট করবে। এর মাধ্যমে দুটি উপাদান পাওয়া যায়। যথা- ১. ব্যক্তিগত, ২. প্রকাশিত সংবাদ সূত্র। প্রথমটা নিজ সংগ্রহের এবং ২য় টা হলো রেফারেন্স ।

১৫). বক্তব্য সংবাদ :- কোন বক্তার বক্তব্যের উপর ভিত্তি করে যে সংবাদের সৃষ্টি হয় তাকেই বক্তব্য সংবাদ বলে। যে সকল বক্তব্যের উপর সংবাদগুলো সৃষ্টি হয়ে থাকে। যথা- সমস্যা সমাধান নির্দেশনা, মানুষের নতুন চাহিদা বা সামাজিক তাগিত সৃষ্টি,  তথ্যসহ ভালো খবর তুলে ধরা এবং খবরের সৃষ্টির ক্ষেত্রে ঈঙ্গিত মূলক কথা ।

১৬). সাক্ষাৎকার :- কল্যাণ বা অকল্যাণকর  কোন ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জরিত বা সম্পৃক্ত এমন কোন ব্যক্তির সাথে ঐ বিষয়ে  সরসরি কথোপকথন করাকেই সাক্ষাৎকার বলা হয়। তিনি হতে পারেন কোন রাজনীতিবিদ, সমাজ সেবক, লেখক, সাহিত্যিক, শিক্ষক, সরকারী আমলা বা কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী ইত্যাদি।

১৭). সংবাদ চিত্র ও ফটো সাংবাদিক :-সংবাদে ব্যবহৃত চিত্র বা ছবি, যাতে প্রতীয়মান থাকে প্রমাণ। কেননা চিত্র আয়না বা দর্পণের মতই একটি বস্তু, যার উপর পাঠক তার দৃষ্টি প্রতিফলন ঘটান এবং মন্তব্য করেন। চিত্রে থাকে প্রমাণ আর সংবাদে থাকে বিশ্বাসযোগ্য বিবরণ। যখন এই চিত্র বা ছবির মাধ্যমে কোন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রকাশ করা হয় এবং যে ব্যক্তি বা কর্মী এই কাজ করে থাকে তাকে ফটো-সাংবাদিক বলে।

১৮). গ্রামীণ সাংবাদিকতা ;- গ্রাম-বাংলার মানুষের আর্থ-সামজিক অবস্থা, অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা, গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্র সমস্যা, চিকিৎসার ব্যবস্থা,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বল্পতা, ডাক-যোগাযোগের সমস্যা,আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি, কৃষি সমস্যা,  খাদ্য সমস্যা,বেকার সমস্যা, জনসংখ্যা বৃদ্ধির আধিক্য, পুনর্বাসন সমস্যার বিষয় নিয়ে যে প্রতিবেদন তৈরী হয় তাকে গ্রামীণ সংবাদ বলে। আর যে ব্যক্তি এই সকল বিষয়ের উপর প্রতিবেদন লেখেন তাকে গ্রামীণ সাংবাদিক বলা হয়।

১৯). সাংবাদিকতার নীতিমালা :-  ১. সাংবাদিকতা অবশ্যই শালীন ও নৈতিকতার বন্ধনে আবদ্ধ হতে হবে। ২. সংবাদপত্র সবসময় সংবাদ রিপোর্ট করবে সংবাদ তৈরী করবেনা। ৩. সংবাদপত্র অবশ্যই সত্য বা সম্পূর্ন সত্য প্রকাশ করে। ৪. কোন ব্যক্তির ব্যক্তিগত ব্যাপারে সংবাদপত্রের  হস্তক্ষেপ থাকবেনা। ৫. একজন সাংবাদিক কোন বিষয় সম্পর্কে কথা বলার সময় ব্যক্তির উপর চাপ প্রয়োগ করে অধিকার সংরক্ষণ করবেনা। ৬. সংবাদপত্র সব সময় তার কলম ও ন্যায্য  ব্যবহার করবে। ৭. সংবাদপত্র অভিযুক্ত ব্যক্তির প্রতি ন্যায্য ব্যবহার করবে। ৮. সংবাদপত্র অবশ্যই তার সংবাদ সূত্রের গোপনীয়তা রক্ষা করবে। ৯. সংবাদপ্রত্র অর্থ বা সৌজন্যের বিনিময়ে তার সংবাদ স্থান বিক্রি করবে। ১০. সংবাদপত্র অবশ্যই জনগণের প্রস্তাবিত সংবাদ গোপন রাখবে। ১১. সংবাদপত্রে রাজনীতির প্রবেশ থাকবেনা। ১২. সংবাদপত্র অপরাধ সম্পর্কে মানুষকে নিরুৎসাহিত করবে। ১৩. সংবাদপত্র অবশ্যই আদালতকে প্রশ্ন করবে। ১৪. সংবাদপত্র কোন অপরাধীর আত্বীয়-স্বজনকে আহত করবেনা। ১৫. সংবাদপত্র বিবাহ বিচ্ছেদকে একটি অপ্রত্যাশিত সমস্যা বলে বিবেচনা করবে। ১৬. প্রতিযোগিতা সংবাদপত্রের উন্নয়ন ও অস্তিত্বের পূর্বশর্ত । ১৭. সংবাদপত্রের খেলার পাতায সবার জন্য লেখা থাকবে। ১৮. সাংবাদিকদের মনে রাখতে হবে, পূর্ণ বয়স্ক স্বাভাবিক নাগরিকদের মতো তরুণ ছেলে-মেয়ে ও মানসিক বিপর্যস্ত ব্যক্তিরাও খবর পড়ে।

২০).পরিশিষ্ট :- বাংলাদেশের (অতিরিক্ত সংখ্যা) গেজেট-০৯মার্চ ১৯৯১ এর তৃতীয় অধ্যায় থেকে সংকলিত।

২১). চাকরীর গ্রেড বা পদক্রম (সংবাদপত্র ) ;- ক) সম্পাদক(বিশেষ গ্রেড) খ) গ্রেড-১: উপ-সম্পাদক, গ্রেড-২: যুগ্ন-বার্তা সম্পাদক, গ্রেড-৩: সহ-বার্তা সম্পাদক, গ্রেড-৪: শিক্ষানবিস সহ-সম্পাদক, গ্রেড-৫: শিক্ষানবিস সম্পাদনা সহকারী।( সংক্ষিপ্তকারে)

২২). চাকরীর গ্রেড বা পদক্রম (সংবাদ সংস্থা) :- ক) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক(বিশেষ গ্রেড) খ) গ্রেড-১: ব্যবস্থাপনা সম্পাদক, গ্রেড-২:প্রধান প্রতিবেদক, গ্রেড-৩:সহ-সম্পদক, গ্রেড-৪: শিক্ষানবিস সহ-সম্পাদক। ( সংক্ষিপ্তকারে)

২৩). সংবাদপত্রের অবিচ্ছেদ্য অংশ বা অপরিহার্য বিষয় :-

ক). ইন্ট্রো:-ইন্ট্রো হলো একটি সংবাদের মূল সারমর্ম । সংবাদ লিখতে গেলে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয় এই ইন্ট্রোর উপরই। ইন্ট্রো পড়েই পাঠক সংবাদ পাঠের প্রতি আরো আকৃষ্ট হয় এবং যাদের সময় কম তারা অন্তত একপলক চোখ বুলিয়ে নিতে পারে সম্পূর্ণ সংবাদটিতে কি রয়েছে। এডিটিংয়ের ভাষায় এটাকেই ইন্ট্রো বলে।

খ). ফটো ক্যাপশন:- সংবাদপত্রে যে ছবি প্রকাশ করা হয় এবং তার নীচে যে তথ্য থাকে তাকে  ফটো ক্যাপশন বলে।

গ). নিউজ পেপার টাইটেল:-সংবাদপত্রের প্রথম পাতার বা পৃষ্টার উপরের অংশে যে নাম, তারিখ, সংখ্যা, মূল্য প্রভৃতি থাকে তাকে নিউজ টাইটেল বলে।

ঘ). টপ স্প্রেড নিউজ:- যখন সংবাদপত্রের উপরের অংশে বড় আকারে কোন সংবাদ ছাপানো হয় তখন তাকে টপ-স্প্রেড বলা হয়।

ঙ). প্রিন্টার্স লাইন:- সংবাদপত্রের সম্পাদক ,প্রকাশক ও প্রকাশনী প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা সমূহকে প্রিন্টার্স লাইন বলে।

চ). অ্যাসাইনমেন্ট :- সংবাদপত্রে সংবাদ প্রকাশের জন্য সুনির্দিষ্ট কাজের দায়িত্বকে অ্যাসাইমেন্ট বলে।

ছ). বীট:- সুনির্দিষ্ট বিষয়ের উপর কাজ করাকে বীট বলে।

জ). বো-আপ:- কোন চবির আকার বড় করাকে বো-আপ বলে।

ঝ). বুলেটিন:- শেষ মূহূর্তের কোন গুরুত্বপূর্ণ বা তাৎপর্য পূর্ণ সংবাদকে বুলেটিন বলে।

ঞ). ক্রেডিট লাইন:- যে মাধ্যম বা উৎস থেকে সংবাদটি এসেছে সেটির নাম উল্লেখ করাকে ক্রেডিট লাইন বলে।

ট). ডেট লাইন:- যে স্থান হতে সংবাদ বা কাহিনীটি পাঠানো হচ্ছে তার নাম ও তারিখকে ডেটলাইন বলে।

ঠ) ট্যাবলয়েড:- সংবাদপত্র যে আকার বা সাইজের কাগজে ছাপা হয় তার অর্ধেক অংশকে  ট্যাবলয়েড বলে।

ড). স্ন্যাপ:- খুব সংক্ষিপ্ত বা অতি ছোট আকারের সংবাদ বার্তাকে স্ন্যাপ বলে।

………….সমাপ্ত………….