বাউফলে ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ৬ জনকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কার

প্রকাশিত: ৮:০৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১, ২০২১
0Shares

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:
পটুয়াখালীর বাউফলে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় শৃংখলা ভেঙে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ায় ৬ জনকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আসম ফিরোজ এমপি তাদেরকে সাময়িক ভাবে বহিস্কার করেন। বুধবার রাতে বহিস্কৃতদের কাছে চিঠি পৌঁছে দেয়া হয়েছে। বহিস্কারাদেশের অনুলিপি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, দপ্তর সম্পাদক ও পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে প্রেরন করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, ইউপি নির্বাচনের প্রথম ধাপে বাউফল উপজেলার নয়টি ইউনিয়নে নৌকা মার্কার প্রার্থীর বিপক্ষে ৬ জন আওয়ামী লীগের নেতা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্ধীতা করছেন। সংগঠন বিরোধী ও দলীও শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে তাদেরকে সাময়িক ভাবে দল থেকে বহিস্কার করা হয়।
বহিস্কৃতরা হলেন, কেশবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আবুল বশার খাঁন,একই ইউনিয়নের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক ও এমপি আসম ফিরোজের শ্যালোক এনামুল হক অপু,চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও এমপি আসম ফিরোজের চাচাতো ভাইর ছেলে এনামুল হক আলকাস মোল্লা, কনকদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান হিরন, আদাবড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শফিুকুল ইসলাম ও ধুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আনিচুর রহমান রব।
বহিস্কারের সত্যতা স্বীকার করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন আহম্মেদ।
এদিকে বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন এনামুল হক আলকাচ। ওই নির্বাচনেও বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় তাকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। কিন্তু চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর তাকে দলে ফিরিয়ে আনা হয়।