প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে শেরপুরের নকলায় সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ২:০০ অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০২০
0Shares

শেরপুর প্রতিনিধি:
গত ১২ জুন দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন সহ ১১ জুন পিবিএ এজেন্সি, ডোনেট বাংলাদেশ, দূর্জয় বাংলা নামীয় অনলাইন পেপারে প্রতিনিধির বরাতে এবং চারুবার্তা২৪ ও নতুন যুগ অনলাইন পেপারে অফিসের স্টাফ রিপোর্টারের বরাত দিয়ে প্রকাশিত ‘শেরপুর জেলার নকলা থানার পে-অর্ডার ছিনতাইয়ের অভিযোগ’ শিরোনামে মিথ্যা একটি সংবাদের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ছাত্রলীগ কর্মী সৌরভ শাহরিয়া।

লিখিত প্রতিবাদলিপিতে সৌরভ শাহরিয়া বলেন, ‘শেরপুরের নকলা হাসপাতালের নানা উপকরণ ক্রয় টেন্ডারের পে-অর্ডার ছিনতাই’ শিরোনামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবং কয়েকটি নিউজ পোর্টালে ‘শেরপুর জেলার নকলা থানার পে-অর্ডার ছিনতাইয়ের অভিযোগ’ শিরোনামে আমার বিরোদ্ধে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করেছে। এ সংবাদটি আমার দৃষ্টি গোচর হয়েছে। পৃথক পৃথক সংবাদে উল্লেখ করা হয়েছে- ৬ জুন ও ১১ জুন কাগজপত্রাদি নিয়ে নকলা হাসপাতালে প্রবেশ করতে চাইলে আমি নাকে রণিকে বাধা প্রদান করি এবং শাহরিয়া এন্টারপ্রাইজের মালিক সজিব হাসানকে মারপিট করে ৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা মূল্যের পে-অর্ডার ছিনিয়ে নেই। এ ব্যাপারে নকলা তানায় অভিযোগ দেওয়া হলে পুলিশের তদন্ত টিমের কাছে অভিযোগের স্বাক্ষী রনি লিখিত ভাবে জানায় যে, ওইদিন ছিনতাইয়ের কোন ঘটনা ঘটেনি। ঘটনার দিন সজিব নকলাতে ছিলেন না, এমকি তিনি হাসপাতালে টেন্ডার জমা দিতেও আসেননি। টেন্ডার জমা দিতে পাঠানো হয়েছিলো সজিবের বন্ধু রনিকে। লিখিত প্রতিবাদলিপিতে আরও বলা হয়েছে, সংবাদে উল্লিখিত ঘটনা বনোয়াট, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও সম্পূর্ণ মিথ্যা। একটি কুচক্রী মহল সৌরভ শাহরিয়াকে রাজনৈতিক ভাবে হেয় করার জন্য সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে এ বনোয়াট খবর করানো হয়েছে।

লিখিত প্রতিবাদলিপি উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে উপস্থাপনের পরে, মিথ্যা ও তথ্যহীন বানোয়াট এ সংবাদের বিরোদ্ধে প্রতিবাদ করে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্যে মুক্তিযোদ্ধের চেতনাকে বুকে ধারণ করে বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে উক্ত বিষয়টির ব্যাপারে সঠিক সংবাদ পিরবেশন করতে সাংবাদিকদের অনুরোধ জানান ছাত্রলীগ কর্মী সৌরভ শাহরিয়া।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ মাধ্যমের অফিসে ও প্রতিবেদকগন মোবাইল ফোনে এ সম্পর্কে বলেন- প্রকাশিত সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পরে নকলা থানা ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে ও তাদের বক্তব্যসহ তৈরি করা হয়েছে। এতে প্রতিবেদকের নিজস্ব কোন বক্তব্য নেই বলে তারা দাবী করেন। কারো দ্বারা প্রভাবিত হয়ে বা কাউকে হেয় করার জন্য সংবাদটি করা হয়নি, তবে  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য, বাস্তব তথ্যের সাথে বেশ গড়মিল থাকায় ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে বলে তাঁরা জানান।