ঝিনাইদহে দোকানপাট বন্ধ ঘোষনার পরেও বৈডাঙ্গা পশুহাটে শত শত লোক সমাগম

প্রকাশিত: ২:২৯ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০
0Shares

অনলাইন ডেক্স: স্তব্ধ নিরব পুরো পৃথিবী এখন মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয়ে, বাংলাদেশেও একই অবস্থা, ৬৪ জেলার মধ্যে গ্রিন জোন হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। গ্রিন জোন চিহ্নিত হওয়ার পরপরই ঝিনাইদহে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেপরোয়া ভাবে বেড়েই চলেছে। ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসকের নির্দেশে জেলা “কভিট ১৯” কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ি জেলায় ২টার পর সকল দোকান পাট বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

কিন্তুু দোকান পাট বন্ধ হলেও বন্ধ হয়নি এক অদৃশ্য শক্তির পশু হাট। মহামারি করোনার মধ্যেও ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বৈডাঙ্গা সহ অন্যান্য পশুহাটে শত শত মানুষ সমাগমে চলছে রমরমা বেঁচা-কেনা। সারা পৃথিবী যখন স্তব্ধ নিরব করোনার ভয়ে মানুষ নির্বাক। বার বার বলা হচ্ছে আপনারা অযথা অপ্রয়োজনে ঘরের বাইরে যাবেন না।

কিন্ত মানুষ সব সচেতনতা বার্তা উপেক্ষা করে ঠিকই অযথা অপ্রয়োজনে ঘরের বাইওে বেরিয়ে আসছে। আর এসব বাধা উপেক্ষা করে দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে শত শত লোক সমাগমে পশুর হাট বসিয়েছে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বৈডাঙ্গা বাজারে। সে মোতাবেক ১৬ জুন মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে এলাকার কিছু প্রভাবশালির সহযোগিতায় এই পশুহাট বসানো হয়।

এলাকার সচেতন মহল মনে করে এই ক্রান্তিলগ্নে পশুহাট না বসালেও চলত। কারন বর্তমান সরকারের নির্দেশ মোতাবেক দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিরলসভাবে মাঠে কাজ করে যাচ্ছে মানুষকে সচেতন করতে কিন্ত আমরা সেই নির্দেশনা উপেক্ষা করে আমাদের বিপদ ডেকে নিয়ে আসছি। সরেজমিনে পশু হাটে গিয়ে দেখা যায় সামাজিক দুরুত্ব না মেনেই মুখে মাক্স ব্যবহার না করে জনসমাগম করে ছাগল-গরু ক্রয়-বিক্রয় করা হচ্ছে।

এলাকার সচেতন মহল মনে করেন ঝিনাইদহ এই লোক ডাউন দেওয়ার কতটুকু সুফল পাবে ঝিনাইদহ বাসি সেটি আমাদের জানা নাই কারন ২ টার পর দোকান দোকান পাট বন্ধ রেখে পশু হাট চলতে দিলে আমাদের ভালোর চেয়ে মন্দই বেশি হবে, কারন পশু হাটে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ব্যাক্তিদের করোনা আক্রান্ত হয়ে থাকে সেটা কেউ জানতে পারবে না, এইরকম ভিন্ন লক ডাউন ঝিনাইদহ বাসি চায় না।

বৈডাঙ্গা এলাকাবাসি এসব হাট অতিদ্রুত বন্ধে জেলা প্রশাসকের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন। এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মোঃ বদরুদ্দোজা শুভ বলেন হাটবারে একটু সময় বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে জন-সমাগম এড়িয়ে কেনা-বেঁচা সীমিত আকারে করতে পারে তবে কেউ সামাজিক দুরুত্ব বা মাক্স ব্যবহার না করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সূত্র: কারেন্ট নিউজ ডট কম