হীরামনি ধ’র্ষ’ণ-হ’ত্যার সপ্তাহ পার আ’সামি ধরায় নেই অগ্রগতি

প্রকাশিত: ২:০৯ অপরাহ্ণ, জুন ১৮, ২০২০
0Shares

অনলাইন ডেক্স: লক্ষ্মীপুরে আলোচিত স্কুলছাত্রী হীরামনি ধ’র্ষণ ও হ’ত্যার স’প্ত াহ পার হলেও আ’সামি ধ’রায় কোনো অগ্রগতি হয়নি। সন্দে’হভাজন দুজন কিশোরকে গ্রে’ফতারের মধ্যেই সীমাব’দ্ধ পুলিশের তৎপরতা। খু’নি এখনও চিহ্নিত না হওয়ায় নিরাপ’ত্তাহীনতায় ভুগছে হীরামনির পরিবার।

আদরের নাতনী হীরামনিকে হারানোর পর থেকে নানা আজগর আলীর কান্না থামছেই না। শুধু তিনি নয়, হীরামনি হ’ত্যার পর তার স্বজনদের আহাজারিতে ভারী যেন পুরো এলাকা। ক্যান্সার আ’ক্রা’ন্ত বাবার চিকিৎসার জন্য মাসহ সবাই যখন ঢাকায় তখন বাড়িতে একা হীরামনি। এ সুযোগেই গত ১২ জুন শুক্রবার দুপুরে লক্ষ্মীপুর সদর উপজে’লার গো’পীনাথপুর এলাকায় নিজ বাড়িতে স্কুলছাত্রী হীরামনিকে ধ’র্ষণের পর নি’র্মমভাবে হ’ত্যা করে দু’র্বৃত্তরা। পরদিন ১৩ জুন রাতে নি’হতের মা ফাতেমা বেগম লাকি বাদী হয়ে অজ্ঞাত আ’সামিদের বিরু’দ্ধে লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানায় ধ’র্ষণ ও হ’ত্যা মা’মলা করেন।

গত ১৫ জুন অয়ন ও সুমন নামে দুই কিশোরকে গ্রে’ফতার করে আ’দালতে সোপর্দ করে পুলিশ। ওই দিন তাদের জেলহাজতে পাঠান আ’দালত। পরবর্তীতে মা’মলার ত’দন্তকারী কর্মকর্তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আ’দালত তিন দিনের রি’মান্ড মঞ্জুর করেন। এর বাইরে এ ঘটনার আর কোনো উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি না থাকায় ক্ষু’ব্ধ স্বজন ও এলাকাবাসী।

পালেরহাট পাবলিক হাইস্কুল প্রধান শিক্ষক মোহা’ম্ম’দ বেলায়েত হোসেন খাঁন বলেন, পুলিশ পারে না এমন কিছু নেই। পুলিশ যদি আরও আন্তরিক হয়, আরও তৎপর হয় তাহলে হয়তো আরও দ্রুত অ’পরাধীদের ধরতে পারবে।

তবে এ ঘটনার রহস্য শিগগিরই উদঘাটিত হবে বলে দাবি জে’লার পুলিশ কর্মকর্তার।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রিয়াজুল কবীর বলেন, দুজনকে গ্রে’ফতার করে রি’মান্ডে দেয়া হয়েছে। হীরামনির পরিবারকে আমর’া সব রকমের নিরাপ’ত্তা দেব।

হীরামনির পরিবারকে আইনী সহায়তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া আইনজীবী মনে করেন ত’দন্তে গু’রুত্ব দিলে দোষীদের চিহ্নিত করে দ্রুত আইনের আওতায় আনা সম্ভব।

আইনজীবী এম শাহজাহান সাজু বলেন, এ মা’মলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত হীরামনির পরিবারকে সহায়তা করব। আশা করি পুলিশ দ্রুত এ হ’ত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করবে।

তিন ভাই বোনের মধ্যে সবার বড় ছিল হীরামনি, পালেরহাট হাইস্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল সে।

সূত্র: jago bangla