ইবাদতে মগ্ন এ্যানি খান, অভিনয়কে বিদায়

প্রকাশিত: ৪:৩৯ অপরাহ্ণ, জুন ২১, ২০২০
0Shares

অনলাইন ডেক্স: শোবিজ দুনিয়ায় শিশুশিল্পী হিসেবে পা রেখেছিলেন এ্যানি খান। দীর্ঘ ২৩ বছর পর ধর্মীয় বিষয়ে নিজের আত্মোপলব্ধির কারণে শোবিজ থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন তিনি।

বিষয়টি নিয়ে এ্যানি খান বলেছেন, কারো দ্বারা প্রভাবিত হয়ে মিডিয়া ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেইনি। এ সিদ্ধান্ত আমার একান্তই ব্যক্তিগত। কারণ মৃত্যুর পর আমার হিসেব আমাকেই দিতে হবে। তাই আত্মোপলব্ধি থেকেই আমি মিডিয়ার কাজ থেকে সরে যাচ্ছি।

আগে শুটিং করা কিছু কাজ এখনো বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচারিত হচ্ছে তার। সে বিষয়ে তিনি জানান, সবকিছু থেকে গুটিয়ে আসতে আমার হয়তো একটু সময় লাগবে। তবে মন থেকে চাইছি আল্লাহ যেন আমাকে আর ওই কাজে না ফেরান। ঘরে থাকবো, ইবাদত করবো। উনি চাইলে সবকিছুই সম্ভব।

সম্প্রতি ভিডিও বার্তায় এ্যানি জানান, তার পুরোনো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাকারদের দখলে। সেখান থেকে কিছু মানুষ তার কাজের পুরনো ছবি ঘেঁটে তার বর্তমান প্রোফাইলে পোস্ট করে তাকে খোঁচা দিচ্ছেন, তাকে ভণ্ড বলছেন। অনেকে আবার নামাজ পড়তে বলছেন।

এ বিষয়ে এ্যানি আরো বলেন, ইবাদত তো দেখিয়ে করে না। আমি যে ভিডিওতে কথা বলছি এটাও হয়তো আমার ধর্মের নিয়মকানুনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। আমি নিজের বিরুদ্ধে নিজে প্রতিনিয়ত জিহাদ করে যাচ্ছি। ইসলাম অনেক সহজ আবার অনেক কঠিন ধর্ম। আমি চেষ্টা করে যাচ্ছি। তাদের এসব খোঁচাকে নিজের প্রায়শ্চিত্তের অংশ হিসেবে ধরে নিয়েছি। কিন্তু দিন শেষে আমিও মানুষ, এসব মেনে নিতে আমারও কষ্ট হয়। আমি ভণ্ড হলে যারা নিয়মিত আমাকে কষ্ট দেওয়ার পর নানা কর্মকাণ্ড করছেন তারা কী?

তিনি বলেন, ‌‘গত বছর থেকে মিডিয়া ছাড়ার পরিকল্পনা করছি, চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকে নিজের মধ্যে সিদ্ধান্তটা বেশি করে নাড়া দিতে থাকে। মার্চের ১৯ তারিখ শেষবার শুটিং করেছি। তারপর করোনায় সবকিছু বন্ধ। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ছি, নফল নামাজ পড়ছি, কোরআন হাদিস পড়ছি। অনেক কিছু থেকে পিছিয়ে ছিলাম শিখছি। আর মিডিয়া আমাকে টানছে না, তাই এই পেশা থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলাম।’

সূত্র: homenews24