চীনের পণ্য ছাড়া অচল ভারত

প্রকাশিত: ৪:২৪ অপরাহ্ণ, জুন ২৩, ২০২০
0Shares

অনলাইন ডেক্স: চীনা পণ্যবিরোধী বিক্ষোভে এখন সরব ভারতের রাজপথ। লাদাখে চীন-ভারত সংঘাতের পর থেকে প্রায় প্রতিদিনই এমন বিক্ষোভ হচ্ছে।  শুধু যে খেলনা বা মোবাইল নয়, গাড়ি থেকে শুরু করে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বয়লার বা পরমাণু বিদ্যুতের রিঅ্যাক্টর – সব ক্ষেত্রেই চীনের পণ্য। কিন্তু ভারতে চীনা পণ্য বয়কট করার দাবী জোরালোভাবে উঠছে।  ভারতের বেশ কয়েকটি ব্যবসায়ী সংগঠন এখন সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে তারাও এবার চীনা পণ্য বিক্রি বন্ধ করবে। খুচরো পণ্যের ব্যবসা করেন, এমন ব্যবসায়ীদের সংগঠন ‘ফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ব্যাপার মন্ডলে’র সাধারণ সম্পাদক ভিপিন বনসাল বলছিলেন,”ভারতীয় সৈনিকদের মৃত্যুতে সারা দেশেই ক্ষোভ ছড়িয়েছে। আমরাও ভারতেরই নাগরিক। তাই এই পরিস্থিতিতে আমরা কেউই চীন থেকে পণ্য আমদানি করে সেদেশের অর্থনীতিকে সহায়তা করতে রাজী নই।

তিনি জানাচ্ছিলেন, চীন থেকে বছরে ৭৪০০ কোটি টাকার পণ্য আমদানি করে খুচরো ব্যবসায়ীরা। কিন্তু বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে বয়লার থেকে শুরু করে ওষুধ শিল্পের অধিকাংশ কাঁচা মাল, গাড়ি শিল্প, বা অন্যান্য ভারী শিল্পও চীন নির্ভর হয়ে পড়েছে বহুলাংশে আর সেই অবস্থার পরিবর্তন করতে চাওয়া বাস্তবিক অসম্ভব। বলছিলেন জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির অধ্যাপিকা জয়তী ঘোষ।

তার কথায়, “চীনা পণ্য মানে কি চীনা খাবারের রেস্তোরাঁ যে বললাম আর বন্ধ হয়ে গেল? না কি শুধু খেলনা আর মোবাইল! আমাদের দেশের বিদ্যুৎ কেন্দ্র, গাড়ি শিল্প, ওষুধ শিল্পের কাঁচামাল, সার, কৃষিযন্ত্র – সবক্ষেত্রেই তো চীনা পণ্য ব্যবহার করা হচ্ছে। আমরা অনেকদিন ধরেই বলার চেষ্টা করছিলাম যে নানা ক্ষেত্রে, যেমন ওষুধ শিল্পে, একটা দেশের ওপরে বেশী নির্ভরশীল হয়ে পড়া অনুচিত। এদিকে চীনের গণমাধ্যমও জানাচ্ছে, ভারতের প্রায় সকল শিল্প প্রতিষ্ঠান চলে চীনের কাঁচামালে। সেই সকল পণ্য নেয়া বন্ধ হলে অচল হয়ে যাবে ভারত।

সূত্র:  somoy news