ঈশ্বরগঞ্জে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙ্গন রোধে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ৫:১৪ অপরাহ্ণ, জুন ২৭, ২০২০
0Shares

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গন রোধে মানব বন্ধন করেছে উচাখিলা ইউনিয়নের মরিচারচর এলাকার চার গ্রামের মানুষ। শনিবার দুপুরে মরিচারচর এলাকার পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গন কবলিত এলাকায় প্রায় দুই হাজার ক্ষতিগ্রস্থ মানুষ তাদের বাড়িঘর ফসলি জমি রক্ষার দাবীতে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে উচাখিলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম জানান, ব্রহ্মপুত্র নদটি আগে ত্রিশাল উপজেলার কালীবাজারের পাশ দিয়ে প্রবাহিত ছিল। মূল নদটিতে চর জেগে বন্ধ হয়ে গতিপথ পরিবর্তন করে মরিচারচর নামাপাড়া, উত্তর পাড়া, মলামারি নামাপাড়া ও মরিচারচর দপ্তর গ্রামের তিন কিলোমিটার ভিতরে ঢুকে পড়েছে।

ফলে প্রতিবছর নদের গর্ভে বিলীন হচ্ছে শত শত ঘরবাড়ি ফসলি জমি। নদীর অব্যহত ভাঙ্গনে নদী পাড়ের অনেকেই এলাকা ছেড়ে অন্যত্র মানবেতর জীবনযাপন করছেন। মরিচারচরের ভাঙ্গন অধ্যুষিত এলাকায় পাউবো তিশ মিটার বেড়ি বাঁধ নির্মাণ করেছিল। ইতোমধ্যে এই বেড়ি বাঁধও হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়ায় এলাকার মানুষের মাঝে আতংক বিরাজ করছে। বর্তমানে ব্রহ্মপুত্র নদ খননের কাজ চলছে।

ভাঙ্গনের শিকার অসহায় মানুষদের দাবী নদটি রেকর্ড অনুযায়ী কালীবাজার সংলগ্ন এলাকায় মাত্র ১.৫ কিলোমিটার খনন করলে নদটি পূর্বাবস্থায় ফিরে যাবে এবং মরিচারচর এলাকার চারটি গ্রাম ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পাবে। এতে নদ খননে সরকারের বিপুল অঙ্কের অর্থেরও সাশ্রয় হবে। মানববন্ধনে অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হাসান খান সেলিম, মুক্তিযোদ্ধা মফিদুল ইসলাম চৌধুরী, ইউপি সদস্য গোলাম মোস্তফা, সাবেক ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম চাঁন মিয়া, সুলতান উদ্দিন প্রমুখ। এ ব্যাপারে জাতীয় সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম বলেন , নদটির মূল অংশ খনন করার জন্য ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর অনুমতি নেয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসক নদীর অংশটি মার্কিং করে দিলেই খনন কাজ শুরু হবে।##