বাউফলে অস্তিত্ব বিহীন মাদরাসায় প্রধানমন্ত্রীর অনুদান !

প্রকাশিত: ৮:২৭ অপরাহ্ণ, জুন ২৯, ২০২০
0Shares
পটুয়াখালী প্রতিনিধি :
পটুয়াখালীর বাউফলে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে দেয়া অনুদানের তালিকায় অস্তিত্ব বিহীন ৩টি মাদরাসার নাম থাকার অভিযোগ উঠেছে। অস্তিত্ব বিহীন ওই মাদরাসা ৩টি হচ্ছে চাঁদকাঠি কাসিমুল উলুম হাফিজিয়া কওমী মাদরাসা, লতিফুল উলুম হাফিজিয়া কওমী মাদরাসা এবং দারুল কোরান ওয়াস সুন্নাত কওমী মাদরাসা।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে মাদরাসা ৩টির সন্ধানে উপজেলার একাধিক কওমীয়া এবং হাফিজিয়া মাদরাসার প্রধানগনদের সাথে আলাপ করলে কেউই ওই নামে কোনো কওমী মাদরাসার সন্ধান দিতে পারেন নি। এমনকি ওই মাদরাসা ৩টির কোনো সন্ধান দিতে পারেনি কওমীয়া মাদরাসাগুলোর সংগঠন বেফাকুল মাদারেসিল আরাবিয়া (বেফাক) বাউফল উপজেলা শাখা।
এ বিষয়ে সংগঠনটির বাউফল উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক ও মদনপুরা জামিয়া কোরানিয়া হাফিজিয়া কওমিয়া মাদরাসার মোহতামিম হাফেজ মাওলানা আবদুল কুদ্দুস বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিল থেকে কওমী মাদরাসাগুলোতে অনুদান দেয়ার কথা শুনেছি তবে কারা ওই অনুদান পেয়েছেন তা আমার জানা নেই। তবে ওই নামে উপজেলায় কোনো কওমীয়া মাদরাসা নেই বলে নিশ্চিত করেন তিনি।
পটুয়াখালী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের শিক্ষা ও কল্যান শাখা থেকে গত ২৬মে বাউফল উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার নিকট পাঠানো একটি পত্রে বাউফল উপজেলায় অবস্থিত ১৩টি কওমী মাদরাসার নাম এবং বরাদ্ধকৃত টাকা বিভাজন উল্লেখ করে পরবর্তী তিন কার্য দিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকে চেক প্রদান এবং চেক প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করতে বলা হয়। চিঠিতে কওমী মাদরাসাসার এতিম ও দুঃস্থ শিশুদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিল থেকে ওই টাকা বরাদ্ধ দেয়ার বিষয়টিও উল্লেখ করা হয়।
এ বিষয়ে বাউফল উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, ওই ৩টি মাদরাসার চেক এখনো বিতরন করা হয় নি। যাচাই বাছাই করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোনো ভুয়া প্রতিষ্ঠানের নামে অনুদান বরাদ্ধ নেয়ার কোনো সুযোগ নেই। তালিকায় কিভাবে ওই তিনটি প্রতিষ্ঠানের নাম এসেছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার দপ্তর থেকে কোনো তালিকা দেয়া হয়নি, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।##