বাউফলে খাল খননে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৭:১৪ অপরাহ্ণ, জুন ৩০, ২০২০
0Shares

এম.নাজিম উদ্দিন,পটুয়াখালী:
পটুয়াখালীর বাউফলে খাল খননে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অনিয়মের প্রতিবাদে মঙ্গলবার স্থানীয় কৃষকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাগেছে, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের অর্থায়নে (বিএডিসি) ক্ষুদ্র সেচ প্রকল্পের আওতায় বাউফল উপজেলার বগা ইউনিয়নের দাসেরহাওলা ও চন্দনবাড়িয়া গ্রামে খাল খনন কাজ চলছে। পটুয়াখালীর সোহেল এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠান কাজটি বাস্তবায়ন করছে। প্রায় আড়াই কিলোমিটার খাল খনন কাজের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৭ লাখ টাকা। সিডিউল অনুযায়ী ৭ ফুট গভীর (ডীপ), টপ ২৬ ফুট প্রস্থ এবং বটম ১০ ফুট প্রস্থের মাপে খাল খনন করার কথা। এছাড়াও শুস্ক মৌসুমে খাল খনন করার নিয়ম।

কিন্তু সরেজমিন পরিদর্শনকালে দেখা যায়, এক্সাভেটর (ভেকু) মেশিন দিয়ে ৫ ফুট পানির গভীরে ওই খাল খনন করা হচ্ছে। খনন কাজ করার সময় বিএডিসির কোন কর্মকর্তাকে তদারকির জন্য দেখা যায়নি।

এ সময় সাংবাদিকদের দেখে স্থানীয় কৃষকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। দাসের হাওলা গ্রামের শাহআলম গাজী, আবদুল হক হাওলাদার ও ছলেমান গাজীসহ একাধিক কৃষক বলেন, খালের অভাবে ফসলের উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় দুই গ্রামের কৃষকরা দীর্ঘদিন ধরে সীমাহীন দুর্ভোগের শিকার। শেষ পর্যন্ত খালটি খননের জন্য সরকার অর্থ বরাদ্দ দেয়ায় সাধারণ মানুষ খুশি হন। কিন্তু সিডিউল অনুযায়ী কাজ না করায় বরাদ্দকৃত অর্থ জনসাধারণের কোন উপকারে আসবে না। আমরা সিডিউল অনুযায়ী কাজ চাই।

অনিয়মের অভিযোগ অস্বীকার করে খাল খনন কাজে নিয়োজিত ঠিকাদার পটুয়াখালী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ সোহেল বলেন, কৃষকদের সঙ্গে কথা বলেই সিডিউল অনুযায়ী খাল খনন করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) ক্ষুদ্র সেচ প্রকল্পের পটুয়াখালীর নির্বাহী প্রকৌশলী কায়সার আহমেদ মুন্সী বলেন, জনবল সংকটের কারনে প্রকল্প এলাকায় তদারকির জন্য কোন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া যাচ্ছে না। তবে খাল খননকাজে অনিয়ম হলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।