তাড়াশে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ৪:০০ অপরাহ্ণ, জুলাই ৬, ২০২০
0Shares

মহসীন আলী,তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি :  
সিরাজগঞ্জের তাড়াশে স্ত্রী ও শ্বশুরের বিবৃতি দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে তাড়াশ টিএনটি মোড়ে বসবাসকারী,উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি,দৈনিক নবচেতনা পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধি আলহাজ্ব গোলাম রাব্বানী। সোমবার দুপুরে তার ছোট ভাই লিটন খন্দকারের বাসায় এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে আলহাজ্ব গোলাম রাব্বানী বলেন,আমি আমার মেয়ে ও ছেলেকে লেখাপড়া করার জন্য বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলার সদরে ভাড়া বাসায় ৩ বছর যাবত আমার স্ত্রী সহ থাকে। সেখানে আমিও মাঝে মাঝে গিয়ে থাকতাম।

কিন্তু দেশের এই মহামারি করোনা ভাইরাস বিদ্যম্যান থাকায় ৩মাস হলে আমার স্ত্রী ও আমার ছেলে মেয়ে তাড়াশ বাসায় অবস্থান করছে। শেরপুরের বাসা ভাড়া দেওয়ার জন্য আমি ৪ জুলাই শনিবার সকালে বাসা থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে রাস্তায় বৃষ্টিতে ভিজে শেরপুর যাই। বাসার গেটে গেলে বাসার মালিক আমাকে দেখে গেট খুলে দেয় তখন আমি মোটরসাইকেল গেটের ভিতরে নিয়ে রুমে গিয়ে পায়জামা পাঞ্জাবী খুলে বেলকুনিতে নেড়ে দেই। ১ঘন্টা পরে বাসার ভাড়া দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হয়ে আসতেই কোয়াটার কিলোমিটার দুরে কিছু যুবক ছেলে আমার মোটর সাইকেল রোধ করে বলে আসেন আপনার সাথে কিছু কথা বলি।

আমাকে একটা ফার্নিচারের দোকান ঘরে নিয়ে যায় এবং সেখানে ১টা মেয়ে দেখতে পাই।৭/৮জন মিলে আমাকে এই মেয়ে নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করতে থাকে। আমি প্রশ্ন গুলো করা দেখে বিব্রত হই। এক পর্যায়ে বুঝতে পারি আমি কোন চক্রান্তের মধ্যে পরেছি। এর মধ্যেই তারা বিভিন্ন ফোন রিসিভ করে কথা বলতে থাকে। কথা বলার মধ্যে বুঝতে পারলাম আমার স্ত্রী ও স্ত্রীর বাবা ভাই বোন কথা বলছে। তখন আমি বুঝতে পেরে আরো শক্ত হয়ে গেলাম। প্রায় ২ঘন্টা জেরা করে আমাকে তারা বলল আপনি আপনার স্ত্রীর অথবা আপনার শ্বশুরের সাথে কথা বলেন তাহলে আমরা আপনাকে ছেড়ে দিবো।

আমি তাদের কথায় রাজি না হয়ে আরো শক্ত হয়ে বললাম প্রয়োজনে আমি এই মেয়েকে বিয়ে করে আমার স্ত্রীকে তালাক দিবো তবুও তাদের সাথে কথা বলবো না। তখন এই ছেলে গুলো অবাক হয়ে বললো ভাই আপনি একজন সম্মানী মানুষ। আমরা বুঝতে পারলাম আপনাদের এটা পারিবারিক কলহ। ছেলে গুলো আমাকে যেতে বলাতে আমি রওয়ানা দিবো এমন সময় থানা থেকে সিভিল পোষাকে এক এসআই ও মহিলা এক পুলিশ এসে আমাকে বললো আপনাকে থানায় যেতে হবে ওসি স্যার ডাকছে।

আমি থানায় গিয়ে ওসি সাহেবের সাথে দেখা করলাম আমাকে বললো আপনার নামে অভিযোগ করেছে আপনার স্ত্রী আপনাকে ছাড়া যাবে না। আবারো চক্রান্তের জালে আবদ্ধ হয়ে থানায় থেকে গেলাম। চলতে থাকে বহু নাটকীয় ঘটনা। যাক আমি আমার লোক দ্বারা বের হওয়ার চেষ্টা করলেও আমার শ্বশুর বিভিন্ন মহলকে ফোন দিয়ে আমাকে কাষ্টরিতে রাখে। ৫ জুলাই রবিবার আমাকে চালান দিলে কোর্টে যাওয়ার ৩০মিনিটের মধ্যেই আমার আমল নামার দায় আমি বের হয়ে আসি। ইতো মধ্যেই আমার নামে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে ২/৪টি পত্রিকায় নিউজ করানো হয়েছে।

যা আমার কর্ম জীবনের,সামনের রাজনৈতিক জীবনের,আমার সংসার জীবনের মান সম্মান হেয় প্রতিপন্য করার জন্য আমাকে সমাজে ছোট করার জন্য কারা জড়িত তা খতিয়ে দেখে তাদের বিরুদ্ধে আইনুনাযায়ী ব্যবস্থা গ্রহনের নিমিত্তে আমি আজকের এই সংবাদ সম্মেলন করছি। আমি আশা করি আপনারা আপনাদের লিখনী দ্বারা আমার এই সংবাদ সম্মেলনের উদ্দেশ্য সফল করবেন।।