সাংবাদিককে লাঞ্চিত করায় উপজেলা প্রেসক্লাবের প্রতিবাদ সভা

প্রকাশিত: ১:১২ অপরাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০২০
0Shares

মহসীন আলী,তাড়াশ(সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : 
সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার সাংবাদিককে লাঞ্চিত করায় তাড়াশ উপজেলা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ সভা করা হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলা প্রেসক্লাব কার্যালয়ে এ প্রতিবাদ সভা করা হয়। লাঞ্চিতের শিকার দৈনিক নবচেতনা পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধি ও উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আলহাজ্ব গোলাম রাব্বানী এই লাঞ্চিতের শিকার হয়েছেন। লাঞ্চিত সাংবাদিক জানান, বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলার সদরে বাসা ভাড়া করে আমি আমার মেয়ে ও ছেলেকে লেখাপড়া করাই। শেরপুরে সেই বাসা ভাড়া দেওয়ার জন্য আমি ৪ জুলাই শনিবার সকালে তাড়াশ থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে শেরপুর যাই।

বাসার গেটে গেলে বাসার মালিক আমাকে দেখে গেট খুলে দেয় তখন আমি মোটরসাইকেল গেটের ভিতরে নিয়ে রুমে গিয়ে পায়জামা পাঞ্জাবী খুলে বেলকুনিতে নেড়ে দেই। ১ঘন্টা পরে বাসার ভাড়া দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হয়ে আসতেই কোয়াটার কিলোমিটার দুরে কিছু যুবক ছেলে আমার মোটর সাইকেল রোধ করে বলে আসেন আপনার সাথে কিছু কথা বলি। আমাকে একটা ফার্নিচারের দোকান ঘরে নিয়ে যায় এবং সেখানে ১টা মেয়ে দেখতে পাই।৭/৮জন মিলে আমাকে এই মেয়ে নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করতে থাকে।

আমি প্রশ্ন গুলো করা দেখে বিব্রত হই। এক পর্যায়ে বুঝতে পারি আমি কোন চক্রান্তের মধ্যে পরেছি। এর মধ্যেই তারা বিভিন্ন ফোন রিসিভ করে কথা বলতে থাকে। কথা বলার মধ্যে বুঝতে পারলাম আমার স্ত্রী ও স্ত্রীর বাবা ভাই বোন কথা বলছে। তখন আমি বুঝতে পারলাম এটা ষড়যন্ত্র। এর পর থানা থেকে সিভিল পোষাকে এক এসআই ও মহিলা এক পুলিশ এসে আমাকে বললো আপনাকে থানায় যেতে হবে ওসি স্যার ডাকছে। আমি থানায় গিয়ে ওসি সাহেবের সাথে দেখা করলাম আমাকে বললো আপনার নামে অভিযোগ আছে ছাড়া যাবে না।

৫ জুলাই রবিবার আমাকে চালান দিলে কোর্টে যাওয়ার ৩০মিনিটের মধ্যেই আমি জামিন নিয়ে বের হয়ে আসি। তিনি বলেন, আমাকে মিথ্যাভাবে ফাসিয়ে লাঞ্চিত করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সহ সভাপতি ও দৈনিক সকালের সময় পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধি মহসীন আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক ও দৈনিক মানবকণ্ঠ পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধি সোহেল রানা সোহাগ, দপ্তর ও পাঠাগার সম্পাদক এস এম সনজু কাদের প্রমুখ।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহিনুর রহমান শাহিন তীব্র ক্ষোভ করে বলেন, এভাবে যদি সাংবাদিকদের উপর মিথ্যা সাজানো ঘটনা দিয়ে লাঞ্চিত,অপমান, অত্যাচার করা হয় তাহলে সাংবাদিকরা দেশের উন্নয়নের কোন কিছুতেই অংশগ্রহন করতে পারবেনা। এভাবে চলতে থাকলে একদিন সংবাদকর্মীদের খুজেও পাওয়া যাবেনা। কে বা কারা এই সাংবাদিককে লাঞ্চিত করেছে অতিবিলম্বে তাদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।