সাভারে স্বামীকে গাছের সাথে বেঁধে স্ত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষন, গ্রেপ্তার এক|

প্রকাশিত: ৭:০০ অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০২০
0Shares

অনলাইন ডেক্স: সাভারে পাওনা টাকা চাওয়ায় ইটভাটার এক শ্রমিককে গাছে সাথে বেঁধে রেখে তার স্ত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষনের অভিযোগে মো: আলাউদ্দিন (৪০) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ শনিবার দুপুরে গ্রেপ্তারকৃত আলাউদ্দিনকে ৭ দিনের পুলিশ রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএফএম সায়েদ।

এর আগে শুক্রবার দুপুরে উপজেলার ভাকুর্তা ইউনিয়নের মোগরকান্দা এলাকার মাহবুবের বাড়ির পাশের একটি কাঠবাগানে এ ধর্ষনের ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় উদ্ধার হয়ে দলবদ্ধ ধর্ষনের ঘটনাটি জানিয়ে ভুক্তভোগী গৃহবধূর স্বামী আতাউর রহমান বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখ করে আজ শনিবার সাভার মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, মামলার বাদি আতাউর রহমান ভাকুর্তা ইউনিয়নের মোগড়াকান্দা এলাকার এবিসি ইটভাটায় লেবার সর্দার আলাউদ্দিনের সাথে সাড়ে ৭ হাজার টাকায় কাজ করেন। শুক্রবার সকালে পাওনা টাকা দেয়ার কথা বলে আতাউরকে স্থানীয় মাহবুরের বাড়ির সামনে ডেকে নেয় আলাউদ্দিন। এসময় আলাউদ্দিনের নির্দেশে তার দুই সহযোগী ওয়াহিদ ও শহিদ আতাউরকে পাশর্^বর্তী একটি বাগানের ভিতরে নিয়ে হাত-পা বেঁধে মারধর করে। একই সময় জুয়েল নামে অপর সহযোগী আতাউরের বাড়িতে গিয়ে আতাউরকে পুলিশ বেঁধে রেখেছে জানিয়ে তার স্ত্রীকে কৌশলে ঘটনাস্থলে নিয়ে আসেন। পরে তারা দুপুরের দিকে ওই গৃহবধুর ইচ্ছার বিরুদ্ধে দলবদ্ধভাবে ধর্ষন করে।

এঘটনায় ভুক্তভোগী গৃহবধূর স্বামী ৪ জনকে আসামীকে করে শনিবার সকালে সাভার মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ দ্রুত বিষয়টি আমলে নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে এবং লেবার সর্দার আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠায়।
মামলার আসামীরা হলো- ভাকুর্তা ইউনিয়নের মোগরকান্দা এলাকার মৃত মজিবুর রহমানের ছেলে ওয়াহিদ (৩০), লালমনিরহাট জেলা সদরের উমাপতি হরনারায়ন গ্রামের মমিনুল হকের ছেলে জুয়েল (২০), কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী থানার মইদাম গ্রামের জহুর উদ্দিনের ছেলে আলাউদ্দিন (৪০) ও সহিদুর রহমান (৪০)।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম সায়েদ জানান, দলবদ্ধ ধর্ষনের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরেই মোগড়াকান্দা এলাকায় অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে শনিবার দুপুরে আলাউদ্দিনকে ৭ দিনের পুলিশ রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানোর পাশাপাশি ভুক্তভোগী ওই নারীকে স্বাস্থ্য পরিক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র:

 মানুষের কণ্ঠ