দশমিনার হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে বাবার বুকে ফিরিয়ে দিলেন ওসি

প্রকাশিত: ৯:০৩ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০২০
0Shares

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:
ছয় মাস আগে নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা থেকে হারিয়ে যাওয়া মো. শিমুল (২৩) নামে মানসিকভারসাম্যহীন এক যুবককে বাবার বুকে ফিরিয়ে দিয়েছেন পটুয়াখালীর দশমিনা থানর ওসি মো. জসিম। বৃহস্পতিবার দুপুর ১ টার দিকে ওই যুবককে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

দশমিনা থানার ওসি মো. জসিম জানান, উপজেলার বেতাগী-সানকিপুর ইউপি চেয়ারম্যান মহিবুল আলম বুধবার দিবাগত রাতে তার এলাকার রাস্তায় অপরিচিত এক যুবককে ঘুরাঘুরি করতে দেখে দশমিনা থানা পুলিশকে খবর দেন। দশমিনা থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে থেকে ওই যুবককে উদ্ধার করে রাতেই দশমিনা থানায় নিয়ে যান। ওই যুবককে উদ্ধার করার সময় স্থানীয়রা থানা পুলিশকে জানান যুবকটি সানসিকভারসাম্যহীনের মত আচরণ করেছেন তাদের সাথে। ঠিকমত কথাও বলতে পারছিলেন না।
পরে দীর্ঘ সময় পর ওই মানসিকভারসাম্যহীন যুবককে পরম যেত্নে ও আদর- স্নেহে দিয়ে জানতে সক্ষম হন তার নাম মো. শিমুল। বাবার নাম বোরহান উদ্দিন। বাড়ি নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা থানায়।

শিমুলের বাবা একজন আইনজীবী। কিন্তু বাবা-মা কিংবা আত্মীয় স্বজনের কারো মোবাইল নম্বর জানে না সে। এ অবস্থায় মানসিকভারসাম্যহীন যুবককে তার অভিভাবকের কাছে পৌঁছে দিতে উদ্যোগী হন দশমিনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জসিম। মানবিক এই পুলিশ কর্মকর্তা মধ্যরাতেই যোগাযোগ করেন নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা থানায়। সেখানে যোগাযোগ করে ওসি জানতে পারেন চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে শিমুল নামে এক যুবক ফতুল্লা থেকে নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় ফতুল্লা থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করা হয়েছিল। পরে চলে উদ্ধারকৃত যুবকের ছবি আদান-প্রদান। এরপর নিশ্চিত হওয়া যায় দশমিনা থানা পুলিশের উদ্ধার করা মানসিকভারসাম্যহীন যুবকই ফতুল্লা থেকে নিখোঁজ হওয়া শিমুল। পরে পরিবারের লোকজনকে শিমুলকে নিতে আসার অনুরোধ জানান ওসি। ছেলের প্রাপ্তি সংবাদ পরিবারকে জানানো ছাড়াও মানসিকভারসাম্যহীন ওই যুবককে নিজের হেফাজতে রেখে তার খাওয়া-দাওয়াসহ সার্বিক দেখাশোনাও করছেন ওসি মো. জসিম। রাত পোহাতেই বৃহস্পতিবার সন্তানের জন্য ব্যাকুল বাবা বোরহান উদ্দিন ছুটে আসেন দশমিনায়। দুপুর ১ টার দিকে দশমিনা থানা পুলিশ সন্তানকে বাবার বুকে ফিরিয়ে দিতে সৃষ্টি হয় এক আবেগঘন পরিবেশের। কান্না থামিয়ে বাবার বুকে ঠাই পেয়ে শিমুল হাসে ¯^স্তির হাসি। পানিতে টলমল করছিল ওসির চোঁখও।
দশমিনা থানার ওসি মো. জসিম উদ্দিনের মহানুভবতা আর প্রচেষ্টায় এভাবে বাবা-মা আর স্বজনদের ফিরে পেয়েছে মানসিকভারসাম্যহীন শিমুল।

শিমুলের স্বজনরা জানান, শিমুল ৬ মাস আগে ফতুল্লা থেকে হারিয়ে যায়। ছেলের সন্ধানে তারা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুজি করেন। দীর্ঘ অপেক্ষার পর না পাওয়ায় আশা এক প্রকার ছেড়েই দিয়েছিলেন।পরে পুলিশের মাধ্যমে তারা জানতে পারেন, তাদের সন্তান শিমুল দশমিনা থানায় রয়েছে। থানায় এসে তিনি ছেলেকে ফিরে পেয়ে এখন আনন্দে আত্মহারা।
দশমিনা থানার ওসি মো. জসিম উদ্দিন জানান, ভালো কাজ করতে পারলে সব সময়ই ভালো লাগে। শিমুলকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশ সব সময় দেশের কল্যাণে কাজ করেন। সন্তানকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে।