কোটচাঁদপুরে স্বামীর নির্যাতনের বিচার চেয়ে গৃহবধূর মামলা

প্রকাশিত: ১১:১০ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৭, ২০২০
0Shares

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে যৌতুকের দাবিতে স্বামীর নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এক গৃহবধূ। নির্যাতনের বিচার চেয়ে স্বামীর হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে কোটচাঁদপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছে স্ত্রী মিরা খাতুন। গত ২৮ জুন স্বামীর মোঃ হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে ১১ (গ) ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ।

মামলার বিবরণীতে জানাযায়, ২০০২ সালে কোটচাঁদপুর বেনেপাড়ার মোঃ আনসার আলীর ছেলে মোঃ হাবিবুরে রহমানের সাথে মহেশপুর উপজেলার রাখালভোগা গ্রামের মোঃ আবুল কাশেম মোল্লার মেয়ে মোছাঃ মিরা খাতুনের সাথে ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক বিবাহ হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

বাদী মিরা খাতুন জানান, বিবাহের পর থেকেই কোটচাঁদপুরে স্বামীর নির্যাতনের বিচার চেয়ে গৃহবধূর মামলা হাবিবুর রহমান যৌতুকের দাবিতে বিভিন্ন সময়ে আমাকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করতে থাকে। আমার সুখের কথা ভেবে আমার পিতা ঘরের আসবাবপত্র সহ নগদ টাকা প্রদান করে। আমি নিজেও সন্তানের কথা ভেবে স্বামীরসংসার করে আসছিলাম। গত ২৪ জুন আমার স্বামীর আসামী হাবিবুর রহমান বেনেপাড়ার নিজ বাসায় রাত সাড়ে ৮টার দিকে ৯ লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবিতে আমাকে শারিরীক ভাবে নির্যাতন করতে থাকে। এবং আমাকে মারপিট করে জখম করে। পরবর্তিতে কোটচাঁদপুর স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয় ।

মিরা খাতুন আরও জানান, আমার স্বামীর আসামী হাবিবুর রহমানের সাথে একাধিক নারীর অবৈধ সর্ম্পক রয়েছে। এমনকি আমার অবর্তমানে অন্য নারীদেরকে নিয়ে আমার বাসায় অবস্থান করতো। এরই মধ্যে জানতে পারি আমার স্বামী হাবিবুর রহমান মহেশপুর উপজেলার পরানপুর গ্রামের আব্দুল হাই এর মেয়ে মোছাঃ সোহানা খাতুনকে লুকিয়ে বিবাহ করে। এমনকি বিবাহের কাবিল নামায় বর্তমানে কোন স্ত্রীর নেই বলে উল্লেখ করেছেন। এবং ঠিকানা হিসাবে কোটচাঁদপুরের বলুহর গ্রামের বাড়ি উল্লেখ করেছে। আমার স্বামী বর্তমানে দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে অন্যস্থানে বাসা ভাড়া করে সংসার করছে।
মামলার বাদী নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ বলেন, আসামী হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা করায় আমাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিচ্ছে। তিনি এর সঠিক বিচার দাবী করেন।