শেরপুরে বন্যাকালীন সময়ে ১৭ জন নিহত, মাঠে কাজ করছে ৫৮ মেডিকেল টিম

প্রকাশিত: ৭:৩৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০২০
0Shares
মো. মোশারফ হোসাইন, শেরপুর প্রতিনিধি:
শেরপুরে চলমান বন্যাকালীন সময়ে নারী, পুরুষ ও শিশুসহ ১৭ জন নিহত হয়েছেন, বন্যার্তদের সেবাদানে মাঠে কাজ করছে ৫৮ টি মেডিকেল টিম।
শেরপুর সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুর রউফ জানান, চলমান বন্যাকালীন সময়ে জেলায় নিহত ১৭ জনের মধ্যে পানিতে ডুবে ১২ জন, সাপের দংশনে ৩ জন ও বজ্রপাতে নিহত হয়েছেন ২ জন। আর বন্যার্তদের সেবা দিচ্ছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের ৫৮টি মেডিকেল টিম। এসব টিমের সদস্যরা এ পর্যন্ত প্রায় এক হাজার ২০০ পানিবন্দী মানুষকে সেবা দিয়েছেন। তিনি আরও জানান, বন্যার্তদের সেবা নিশ্চিতে মেডিকেল ক্যাম্পগুলো বন্যা কবলিত এলাকার আশপাশে স্থাপন করা হয়েছে। এসকল টিমের মাধ্যমে মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ৩৩২ জন ডায়রিয়া রোগীকে সেবা দেয়া হয়েছে। ডায়রিয়ার প্রকোপ কমাতে বন্যার্তদের মাঝে ৫০ হাজার খাবার স্যালাইন ও ২ হাজার পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়েছে।
জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী জিয়াসমিন খাতুন জানান, আজ বুধবার সকালে শেরপুর সদরে ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ১০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তাঁর দেওয়া তথ্য মতে তীরবর্তী ৩০টি গ্রাম তলিয়ে গেছে। টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে পানিবন্দী হয়ে আছে অগণিত মানুষ।
শেরপুরে সদ্য যোগদানকৃত অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি-সার্বিক) ওয়ালিউল হাসান জানান, গত ১৩ দিনে দুইধাপের বন্যায় একহাজার ১০০ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি গ্রস্থ হয়েছেন চরাঞ্চলের শাক-সবজী চাষিরা। তিনি আরও জানান, জেলায় বন্যার্তদের সহায়তায় ১৫০ মেট্রিক টন চাল ও আড়াই লাখ টাকা সরকারি সহায়তা এরই মধ্যে বিতরণ করা শেষ হয়েছে। নতুন করে আরও বরাদ্দ চেয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।