রাত পোহালেই খুশির ঈদ- সাংবাদিক সিরাজ আল মাসুদ

প্রকাশিত: ২:২৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩১, ২০২০
0Shares

         ছবিঃ সিরাজ আল মাসুদ

 দুটো প্রাকৃতিক দুর্যোগ ( কোভিড ১৯ ও দীর্ঘস্থায়ী বন্যা) এর মাঝে মুসলিম জাতির শ্রেষ্ঠ ও খুশির দিন পবিত্র ঈদুল আজহা। এই খুশির দিনটি রুপ নিয়েছে মহামারিতে। অর্থনৈতিক ও সামাজিক ভাবে মানুষের মনে সৃষ্টি হয়েছে আতঙ্ক। রাত পোহালেই খুশির ঈদ । অথচ মুসলমানরা ঈদগাহে গিয়ে একসঙ্গে নামাজ আদায় করে পশু কোরবানি দেবেন সেই সৌভাগ্য সবার হচ্ছে না। ধনী-দরিদ্র, সব বয়সী মুসলমান ভাবগম্ভীর পরিবেশে নামাজ আদায় এবং পরস্পর কুশলাদি বিনিময়ের পাশাপাশি কোলাকুলি করেন। ঈদগাহে সমবেত সব মুসল্লি আল্লাহপাকের দরবারে মোনাজাত করেন পার্থিব এবং পারলৌকিক কল্যাণের আশায়। মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য দুই ঈদই অশেষ সংহতি ও সম্প্রীতি বয়ে আনে। কিন্তু এবারের ঈদুল আজহার নামাজ পড়তে হবে ঈদুল ফিতরের মতোই মসজিদে-মসজিদে। তাও আবার বন্যার কারনে সকল মসজিদে নামাজ আদায় করার মত পরিস্থিতি নেই।
তবুও ঈদ হোক আনন্দের।

কোরবানির মাংসের একটি অংশ সমাজের দরিদ্র মানুষ, আর একটি অংশ আত্মীয় স্বজন বাকী অংশ নিজেদের। এইযে মানুষের মাঝে খুশি মনে মাংস বিতরণ সেটাও বাধাগ্রস্থ হচ্ছে
। এতে ঈদের আনন্দ ম্লান হয়ে গেছে ।

হযরত ইব্রাহিম (আ) ত্যাগের উদাহরণ সৃষ্টি করে গেছেন, সেটাকেই মর্যাদা দিয়ে বিশ্বের মুসলমানরা যুগযুগ ধরে ঈদ-উল-আজহা পালন করে আসছেন।কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে লোক দেখানো আনুষ্ঠানিকতাকে। আমরা যেন লোক দেখানো অসুস্থ প্রতিযোগিতা নেমে না পরি। ঈদ-উল-আজহা ধনী, দরিদ্র সব ভেদাভেদ ভুলে মানুষের মাঝে নিজেকে সমর্পিত করার দিন। কোরবানির পশুর মাংস বিতরণ যথাযথভাবে করা সঙ্গত। এতে বন্যাদুর্গত ও দরিদ্র শ্রেণীর মানুষ উপকৃত হবে। পারস্পরিক সাহায্য-সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে সকলে মিলে মোকাবেলা করলে কোন সমস্যাই সমাধানের উর্ধে নয়। কোরবানীর এই আত্মত্যাগের শিক্ষা শুধু ঈদের দিনের জন্য নয়। এ শিক্ষা সবার জীবনে আসুক সব কাজের জন্য।
আমাদের প্রত্যেকের ভেতরের পশুটা হোক কুরবানী। পরিশুদ্ধি হোক আত্মার। নতুন করে হোক আমাদের পথচলা।

নাগরপুর জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার সকল সদস্য বৃন্দ, উপজেলাস্থ সকল সাংবাদিক সংগঠন, দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার পাঠক,অনলাইন নিউজ পোর্টাল “দি নিউ স্টার ২৪.কমের ” সকল পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতাসহ উপজেলার সকল পেশাজীবি মানুষের প্রতি রইলো পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা। শত কষ্টের মাঝে ঈদের আনন্দ ছড়িয়ে পড়ুক সবার ঘরে ঘরে । ঈদ মোবারক।