বাউফলে সাংবাদিকের খামার বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা,ভাংচুর

প্রকাশিত: ৬:৫৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০২০
0Shares

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:
পটুয়াখালীর বাউফলে এক সাংবাদিকের খামার বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা, ভাংচুর, ছিনতাইসহ ভোগদখলীয় সম্পত্তি দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার খামার বাড়ীর কেয়ারটেকার মো. উজ্জল হোসেন বাদী হয়ে বাউফল থানায় ৬ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং১০/১৩/০৮/২০ইং। মামলা সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার দাশপাড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডে আয়শা সিদ্দিকা এগ্রো ফিশ প্রজেক্টের মালিক পৌর শহরের ৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত- বীরমুক্তিযোদ্ধা এবিএম আ. খালেক’র বড় ছেলে ও বাউফল প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি,দৈনিক সংবাদ পত্রিকার বাউফল প্রতিনিধি আল মামুন। তিনি তাঁর খামারবাড়ীর সংলগ্ন ২৬৩নং খতিয়ান ও ৩২১৫ দাগে ৯শতাংশ জমি ভোগ দখল করে আসছে। ওই জমিতে রাস্তা ও বিল্ডিং নির্মাণ করার জন্য ইট বালু নিয়ে রাখে। গত ৩ আগষ্ট কনকদিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত- মনসুর কাজির ছেলে মনিরুল ইসলাম মনির ও দাশপাড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত- রত্তন আলী খাঁনের ছেলে আলম খাঁনের নেতত্বে ৫/৭জনের একটি সন্ত্রাসী দল ওই প্রজেক্টে হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা রাস্তা ও বিল্ডিং নির্মাণের জন্য রাখা ৫০হাজার টাকা মূল্যের নির্মাণ সামগ্রী নিয়ে যায়। প্রায় ১৫ হাজার টাকার মূল্যের বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষের চারা ও গাছ ভাংচুর করে। কেয়ারটেকার উজ্ঝালকে মারধর করে এবং ভয়ভীতি প্রর্দশণ করে। এছাড়াও খামারীর সংলগ্ন জমিতে মাটি কেটে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে।
সাংবাদিক আল মামুন অভিযোগ করে বলেন, সরকার যখন বেকার যুবকদের নিজ উদ্দ্যোগে উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছেন, সেখানে মনিরুল ইসলাম মনির কোন প্রকার উস্কানি ছাড়া আমার মতন একজন উদ্যোক্তার একটি স্বপ্ন ধুলিসাৎ করার অপচেষ্টা করছেন। আমার খামার বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা, ভাংচুর, ছিনতাইসহ ভোগদখলীয় সম্পত্তি দখলের চেষ্টা করে। আমি এর সুষ্ট তদন্ত সাপেক্ষে বিচার দাবী করছি।
এঘটনায় বাউফল থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।