বাউফলে দুই যুবলীগ নেতার খুনিদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ১১:২৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০২০
0Shares

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:
পটুয়াখালীর বাউফলে কেশবপুর ইউনিয়ন যুবলীগ সহ-সভাপতি রকিব উদ্দিন রুমন ও যুবলীগ কর্মী ইশাদ তালুকদারের খুনিদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন নিহতদের পরিবারের সদস্যরা। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় বাউফল প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে ওই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিহত যুবলীগ নেতা রুমনের বড় ভাই কেশবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সালেহ উদ্দিন পিকু। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন,’মামলার প্রধান আসামী কেশবপুর ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন লাভলু আগাম জামিনে মুক্তি পেয়ে বাদী ও বাদীর আত্মীয় স্বজন এবং আসামীদের বিভিন্ন মামলায় জড়ানো সহ প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে। এতে আমি আমার পরিবারের সদস্যসহ মামলারআসামীদের আতঙ্কিত হয়ে পড়েছি।

এসময় নিহত রুমন ও ইশাদের হত্যার সাথে জড়িত সকল আসামীদের অবিলম্বে গ্রেফতার এবং ফাঁসি দাবী করেন। বাউফল প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মো. দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সংবাদ সম্মলনে উপস্থিত ছিলেন-নিহত রুমনের মা ফাতেমা বেগম, বড় বোন জেবুন নাহার অনি, মামলার বাদী মফিজ উদ্দিন মিন্টু, কেশবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মনিরুল ইসলাম টিটু প্রমুখ।
উল্লেখ্য, গত ২আগষ্ট সন্ধ্যায় কেশবপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি রুমন তালুকদার ও ইশাদ তালুকদারকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা হয়। এঘটনায় কেশবপুর ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন লাভলুসহ ৫৯ জনকে আসামী করে একটা মামলা দায়ের করা হয়।

এ বিষয়ে বাউফল থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আল মামুন বলেন,’ইতিমধ্যে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ১৩জন আসামী গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। আর মামলার বাদী এবং ¯আসামীদের কে হুমকি দেয়ার কোনো অভিযোগ আমরা এখনো পাইনি। এমন অভিযোগ পেলে খতিয়ে দেখা হবে। আর এ ঘটনায় জড়িত অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।