শেরপুরে জন্ম দিবস উপলক্ষে বৃক্ষ রোপণ ও রক্ত দান

প্রকাশিত: ১০:১৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২০
0Shares

মো. মোশারফ হোসাইন, শেরপুর প্রতিনিধি:

বিডি ক্লিন শেরপুর জেলা সমন্বয়ক আল আমিন রাজুর ২৯ তম জন্ম দিবস উপলক্ষে বৃক্ষ রোপণ ও স্বেচ্ছায় রক্ত দান করা হয়েছে। বিডি ক্লিন নকলা টিমের উদ্যোগে জেলা সমন্বয়ক আল আমিন রাজুর ২৯ তম জন্ম দিবস উপলক্ষে ফলজ, বনজ ও ঔষুধী সহ বিভিন্ন জাতের ২৯ টি গাছের চারা রোপণ কার্যক্রম উদ্বোধন কার হয়। শেরপুর জেলা শহরে আল আমিন রাজুর বাস ভবনের ছাদে একটি কাশ্মেরী কুল ও একটি সিড লেস লেবুর কলম চারা রোপনের মাধ্যমে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। এসময় বিডি ক্লিন শেরপুর জেলা সমন্বয়ক আল আমিন রাজু, বিডি ক্লিন নকলার সমন্বয়ক আব্দুল্লাহ আল আমিন, সহ-সমন্বয়ক আসাদুজ্জামান সৌরভ ও সদস্য ফজলে রাব্বী রাজনসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

বিডি ক্লিন নকলার সহ-সমন্বয়ক আসাদুজ্জামান সৌরভ বলেন, ইসলামের দৃষ্টিতে জন্ম দিবস পালন করা ঠিক না। তবুও দেশে প্রতিদিন হাজারো মানুষের জন্ম দিবস ঘটা করে পালন করা হয়, ব্যয় করা হয় অগনিত টাকা। আর প্রতিটি জন্ম দিনের অনুষ্ঠানে অতিথিরা বিভিন্ন উপহার সামগ্রী নিয়ে হাজির হন। এসব উপহার সামগ্রী ব্যবহারের পরে তা দিন দিন নষ্ট হয়ে যায়। কিন্তু গাছের চারা রোপন করলে দিন দিন বড় হয় এবং কোন একদিন সম্পদে পরিণত হয়। ফলে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার পাশাপাশি সমৃদ্ধ হয় কৃষি অর্থনীতি। তাই তাঁরা (বিডি ক্লিন) মানুষের মাঝে সচেতনতা বাড়াতে এমন অভিনব জন্ম দিবস পালন করে আসছেন।

বিডি ক্লিন নকলার সমন্বয়ক আব্দুল্লাহ আল আমিন বলেন, দেশে প্রতিদিন যে পরিমাণ জন্ম দিবস পালন করা হয়, প্রতিটি অনুষ্ঠানে যদি অতিথিরা দৈনন্দিন ব্যবহার্য উপহার সামগ্রী না দিয়ে এর পরিবর্তে বিভিন্ন জাতের গাছের চারা উপহার দিতেন; তাহলে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার পাশাপাশি তাপমাত্রা বৃদ্ধি, খড়া, অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, বন্যা ও নদী ভাঙনের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ কিছুটা হলেও কমতো। পক্ষান্তরে এককালীন বেশ টাকাও আসতো, তাতে বাড়তো মানুষের সুখ ও শান্তি। তাই জন্ম দিনের অনুষ্ঠানসহ যে কোন অনুষ্ঠানে দৈনন্দিন ব্যবহার্য উপহার সামগ্রীর পরিবর্তে বিভিন্ন জাতের গাছের চারা উপহার দিতে সকলের প্রতি আহবান জানান তাঁরা।

২৯ তম জন্ম দিবস উপলক্ষে বিডি ক্লিন নকলা টিমের পক্ষ থেকে বৃক্ষ রোপনের মতো মহৎ কাজের উদ্যোগ নেওয়ায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন জেলা সমন্বয়ক আল আমিন রাজু। তিনি জানান, তাঁর ২৯ তম জন্মদিনে ২৭ বারের মতো মুমুর্ষ রোগীর জীবন বাঁচাতে স্বেচ্ছায় রক্ত দিয়েছেন। মহান আল্লাহ সুস্থতার সহিত বাঁচিয়ে রাখলে আগামী বছর তথা ৩০ তম জন্ম দিনে তিনি ৩০ বারের মতো স্বেচ্ছায় রক্ত দান করবেন। এর জন্য তিনি সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন।