উদ্বোধনের পৌণে ২ বছর পরেও জনগনের কাজে আসছেনা শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালের নতুন ভবন

প্রকাশিত: ৪:৪৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২০
0Shares
মো. মোশারফ হোসাইন, শেরপুর প্রতিনিধি:
প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের এক বছর ৯ মাস পরেও ব্যবহার শুরু হয়নি ৩৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ২০০ শয্যা বিশিষ্ট শেরপুর সদর হাসপাতালের সম্প্রসারিত নতুন ভবন।
২০১৮ সালের ২ নভেম্বর শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালের সম্প্রসারিত ভবন উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয়  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু এখনও নতুন ভবনে হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হয়নি।
তথ্য মতে, ১৯৮৪ সালে সীমান্তবর্তী অঞ্চল শেরপুরকে জেলায় উন্নীত করা হয়। কিন্তু তখনও জেলা সদর হাসপাতালটি ছিল ৫০ শয্যা বিশিষ্ট। দীর্ঘদিন পর তা ১০০ শয্যায় উন্নীত হলেও রাজস্ব খাতে ছিল ৫০ শয্যাই। এমতাবস্থায় জেলার প্রায় ১৬ লাখ মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার লক্ষে সরকার এ ১০০ শয্যার হাসপাতালটি ২৫০ শয্যায় উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর শহরের নারায়ণপুর এলাকায় এ হাসপাতালের পাশেই এক একর ১০ শতাংশ জমির ওপর ৩৬ কোটি টাকা ব্যয়ে আট তলা ভবন নির্মাণের প্রকল্প হাতে নেয় গণপূর্ত বিভাগ।
পরে ২০১৫ সালের ১২ নভেম্বর জেলা সদর হাসপাতালের নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন সরকারদলীয় হুইপ মুক্তিযোদ্ধা আতিউর রহমান আতিক এমপি। এর প্রায় ৪ বছরের মাথায় প্রকল্পটির বাস্তবায়ন কাজ শেষ হয়। পরে ২০১৮ সালের ২ নভেম্বর ময়মনসিংহ বিভাগের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের সাথে শেরপুর সদর হাসপাতাল ২৫০ শয্যার জেলা সদর হাসপাতালের নতুন ভবনসহ জেলার বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
কিন্তু সেই ঘোষণার পরে এক বছর ৯ মাসেও চালু  হয়নি হাসপাতালের নতুন ভবনের কার্যক্রম। শেরপুর সদর হাসপাতালের নতুন ভবন চালু করার জন্য কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন সব পেশা শ্রেণির মানুষ।