নকলার ওসি আলমগীর হোসেন শাহ্’র নেতৃত্বে পুলিশ বিভাগের কর্মতৎপরতায় সর্বমহলে স্বস্তি

প্রকাশিত: ৯:৪২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২০
34 Views

মো. মোশারফ হোসাইন, শেরপুর প্রতিনিধি:

শেরপুর জেলার নকলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর হোসেন শাহ্ এর নেতৃত্বে পুলিশ বিভাগের কর্মতৎপরতায় সর্বমহলে স্বস্তি ফিরে এসেছে। জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস, বাল্যবিবাহ, মাদক, বেদখল, জুয়া, পারিবারিক কলহসহ বিভিন্ন সামাজিক, পারিবারিক ও রাজনৈতিক অপরাধ থেকে নকলা উপজেলাবাসীকে নিরাপদ রাখতে বিভিন্ন কৌশল অবলম্ভন করে তিনি নকলাবাসীর কাছে প্রিয় ওসি হিসেবে সমাদৃত। তিনি হয়ে উঠছেন নকলাবাসীর প্রিয় পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে।

উপজেলায় বিভিন্ন অপরাধ দমনে সার্বিক নিরাপত্তাদান ও কর্মতৎপরতা বৃদ্ধির মাধ্যমে পুলিশি সেবার মানকে মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, পুলিশিং কমিটি ও গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় সাহসিকতার সাথে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন তিনি ও তাঁর নেতৃত্বে নকলার থানার সকল পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যগন। জনকল্যাণে ও নিরাপত্তা জোরদারের লক্ষে তিনি বিভিন্ন কৌশল অবলম্ভন করে যাচ্ছেন। এর অংশ হিসেবে উপজেলার সকল সরকারি দপ্তর-অধিদপ্তরে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য ওসি আলমগীর হোসেন শাহ্ নিজে ও তাঁর নেতৃত্বে নকলা থানার পুলিশ মাঠে নেমেছেন।

এর মধ্যে, উপজেলার সরকারি দপ্তর-অধিদপ্তরের অফিসকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনাসহ টহল পুলিশের নিরাপত্তা জোরদারের লক্ষে প্রতিটি দপ্তর-অধিদপ্তর পরিদর্শন করেছেন অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর হোসেন শাহ্ ও তাঁর সঙ্গীয় এসআই জুয়েল, আতাউর রহমানসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য। তিনি উপজেলার প্রতিটি দপ্তর-অধিদপ্তরের অফিস ভবনের দরজা-জানালা ঠিক আছে কি-না তা, ব্যক্তিগত ডায়েরীতে নোট করে নেন এবং দপ্তর প্রধানদের নিজ নিজ দায়িত্বে সিসি ক্যামেরা লাগানোসহ অফিসের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও উন্নত করতে পরামর্শ দেন। ওসি আলমগীর হোসেন শাহ্’র এমন উদ্যোগে খুশি উপজেলার বিভিন্ন দপ্তর-অধিপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

ওসি নিজস্ব কৌশলে দক্ষতার সহিত জনগনের সাথে ভালো সম্পর্ক গড়ে তুলে ‘পুলিশ জনগনের সেবক, সেবাই পুলিশের ধর্ম’, পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ’ এটা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন। নকলাকে বিভিন্ন অপরাধ মুক্ত করে আধুনিক থানায় পরিণত করতে তিনি এবং তার অধিনস্ত পুলিশ বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তা ও সদস্যগন নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। আর নকলা থানা পুলিশের এমন পরিকল্পনা প্রনয়ণ ও বাস্তবায়নের কারনে উপকৃত হচ্ছেন বা এর সুফল ভোগ করছেন নকলা উপজেলার সর্বস্তরের জনগণ।

বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং, আইন শৃঙ্খলা ও মাদক নিয়ন্ত্রণে সবপেশা শ্রেণীর জনগনের উপস্থিতিতে মতবিনিময় সভা; প্রধান মন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বৃক্ষ রোপন করা, গুজব প্রতিরোধে শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কমিউনিটি পুলিশিং সদস্য, জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, সাংবাদিকসহ সর্বস্তরের জনতার সাথে সম্প্রীতি সমাবেশ; প্রতিটি ইউনিয়নে গ্রেফতারী পরোয়ানা তামিল, জঙ্গী, গুজব, মাদক ও ইভটিজিং নির্মূলে কমিউনিটির অংশ গ্রহণে বিশেষ শান্তি সমাবেশ করা; করোনা ভাইরাস (কোভিট-১৯) সংক্রমণরোধে বিভিন্ন মাধ্যমে জনসচেতনতা বাড়ানো, বিট পুলিশিং এর উঠান বৈঠক করা, দরিদ্রদের মাঝে সহায়তা বিতরণ, করোনা কালীন সময়ে উপজেলার পুলিশ বিভাগে কর্মরত সকল পুলিশ কর্মকর্তা-সদস্যের বাড়িতে উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া। বিশেষ প্রয়োজনে ও ক্ষেত্র বিশেষে পুলিশিং কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা, প্রতি সপ্তাহে উপজেলার সকল গ্রাম পুলিশদের বর্তমান প্রেক্ষাপটে সরকারি নির্দেশনা পৌঁছে দেওয়াসহ আনঅফিসিয়াল প্রশিক্ষণ প্রদান; বিশেষ করে ভুক্তভোগী ও জনসাধারনের সেবার মান বাড়িয়ে তিনি আজ নকলার সব পেশাশ্রেণি ও বয়সের জনগনের কাছে একজন সফল পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে সুনাম অর্জন করেছেন।

‘পুলিশ জনগনের সেবক, সেবাই পুলিশের ধর্ম’ এটা অক্ষরে অক্ষরে পালন করছেন নকলা থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মরত (ওসি) আলমগীর হোসেন শাহ’র নেতৃত্বে থাকা এসআই, এএসআই ও নারী-পুরুষ পুলিশ সদস্যরা। আলমগীর হোসেন শাহ্ ওসি হিসেবে নকলায় যোগদানের পর থানায় বিভিন্ন স্তরের দালালি লক্ষনীয় ভাবে কমেছে, কমেছে রাজনৈতিক প্রভাবও। গা ডাকা দিয়েছে মাদক কারবারিসহ বিভিন্ন অপরাধীরা। বন্ধুসুলভ ও জনমুখি সেবায় পুলিশের ভাবমূর্তি দিন দিন সমুন্নত হচ্ছে। শান্তিতে জীবন যাপন করছেন নকলাবাসী। সুদক্ষ ওসি তাঁর কৌশলী বুদ্ধিমত্তা দিয়ে অপরাধ দমনের ফলে জনমনে স্বস্তি দেখা দিয়েছে। নকলা থানার পুলিশ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, জনবহুল এলাকা ও মসজিদ-মাদরাসায় জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস, বাল্য বিবাহ, মাদক, বেদখল, জুয়া, পারিবারিক কলহসহ বিভিন্ন অপরাধ থেকে নকলা উপজেলাকে মুক্ত রাখতে নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। আর এর সুফল ভোগ করছেন নকলা উপজেলার সর্বস্তরের জনগণ।

জানা গেছে, ২০০২ সালে ময়মনসিংহের আনন্দ মোহন বিশ্ব বিদ্যালয় কলেজ থেকে পড়ালেখা শেষ করার ঠিক ৩ বছর পরে তথা ২০০৫ সালে সরাসরি এসআই পদে পুলিশ বিভাগে নিয়োগ পেয়ে রাজধানী ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট থানায় কাজে যোগদান করেন আলমগীর হোসেন শাহ্। এরপরে দেশের বিভিন্ন থানায় দক্ষতার সহিত কাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করেন। ২০১৬ সালে ওসি তদন্ত হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে শেরপুর সদর থানায় যোগদান করেন। সর্বশেষ ২০১৯ সালের ১৮ জুলাই তারিখে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিসেবে নকলা থানায় নিয়োগ পেয়ে অধ্যাবদি নিষ্ঠার সহিত দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তাঁর এ সফলতার পিছনে পুলিশ বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বাবা-মা, ভাই-বোন, পুলিশ অফিসার শ্বশুর মশাই ও তাঁর সহকর্মীসহ অনেকের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। ভবিষ্যৎ জীবনে নিষ্ঠার সহিত দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে মাথা উঁচু করে সুনামের সহিত চলার জন্য আত্মীয়-স্বজন ও শুভাকাঙ্খীসহ সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন তিনি।