নান্দাইলে ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের প্রতিবাদে মানব বন্ধন অনুষ্টিত

প্রকাশিত: ৫:৫৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৮, ২০২০
22 Views
মোহাম্মদ আমিনুল হক বুুলবুল, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :
ময়মনসিংহের নান্দাইলে ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের প্রতিবাদে মানব বন্ধন অনুষ্টিত
হয়েছে। বৃহস্পতিবার ৮ অক্টোবর এই মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
 শিক্ষার আলো স্টুডেন্টস এইড ফাউন্ডেশন, নান্দাইল উপজেলা ব্লাড ডোনেট সোসাইটি, নান্দাইল উপজেলা সচেতন ছাত্রসমাজ ও সমাজ রূপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের উদ্দ্যোগে ‘আমার সোনার বাংলায়, ধর্ষকের ঠাঁই নাই’ স্লোগানে ধর্ষণ প্রতিরোধ ও ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসির দাবীতে পৃথক পৃথকভাবে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের মুশুল্লী নামক স্থানে শিক্ষার আলো স্টুডেন্টস এইড ফাউন্ডেশনের সভাপতি সাদনান অপূর্ব শাকিলের নেতৃত্বে ও মোফাজ্জ্বল সাদাদ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মুশুল্লী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহীদুল ইসলাম ভূইয়া, সিনিয়র সাংবাদিক আলম ফরাজী, মুশুল্লী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সীমা রাণী সরকার, স্টুডেন্টস এইড ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি আশরাফুন আহমেদ ছোয়া প্রমুখ। ঘন্টাব্যাপী উক্ত মানববন্ধনে একাত্মতা পোষণ করেন নান্দাইল উপজেলা ব্লাড ডোনেট সোসাইটি ও অগ্রদুত বিদ্যানিকেতন সহ স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী ও নান্দাইলের সর্বস্তরের জনগণ।
অপরদিকে নান্দাইল উপজেলা পরিষদের সামনে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ হাইওয়ে সড়কে সমাজ রূপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের উদ্যোগে মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।  সভাপতি এ.হান্নান আল আজাদের নেতৃত্বে মানববন্ধনে সাধারন সম্পাদক আমরু মিয়া সহ সংঘের সকল সদস্যবৃন্দ, ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারন জনগণ উপস্থিত ছিলেন।এসময় তাদের সাথে একাত্মতা পোষন করেন নান্দাইল উপজেলা সচেতন ছাত্রসমাজ।
মানববন্ধনে বক্তারা ধর্ষণ আইনে ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড নিশ্চিত করা, ধর্ষণজনিত সকল ঘটনার বিচারের জন্য আলাদা দ্রুত বিচার ট্রাইবুন্যাল গঠন,  ধর্ষিতার বিনামুল্যে চিকিৎসা, ক্ষতিপুরণ ও পরিবারকে সহায়তা প্রদান, প্রতি জেলায় ধর্ষণ প্রতিরোধ আলাদা টাস্কফোর্স গঠন এবং ধর্ষকদের মদদদাতা  ও প্রশ্রয়দাতাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।
মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শোভন রাংসা (ভারপ্রাপ্ত) বরাবর ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে স্মারকলিপি প্রদান করেন।